প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

উটের গুড়ো দুধে মধ্যপ্রাচ্যে ব্যাপক সাড়া

রাশিদ রিয়াজ : উটের গুড়ো দুধ শিশু খাদ্য হিসেবে বাজারজাতের উদ্যোগে মধ্যপ্রাচ্যে পণ্যটি নিয়ে ব্যাপক আগ্রহের সৃষ্টি হয়েছে। ‘ক্যামেলিসিয়াস’ নামে আমিরাতি এক কোম্পানি বিশ্বে প্রথমবারের মত শিশু খাদ্য হিসেবে উটের গুড়ো দুধ বাজারজাত করছে। যে সব শিশুর গরুর দুধে এ্যালার্জি আছে তাদের জন্যে উটের গুড়ো দুধ সহায়ক হবে বলে কোম্পানিটির ধারণা। ক্যামেলিয়াস এ ধরনের গুড়ো দুধ গত সপ্তাহে দুবাইতে এক আন্তর্জাতিক খাদ্য ও বেভারেজ প্রদর্শনী ‘গালফ ফুড ২০১৮’ উপলক্ষে প্রথমবার বাজারজাত করে। আল-আরাবিয়া ইউকে

পুষ্টিকর এধরনের গুড়ো দুধ এক থেকে তিন বছরের শিশুদের জন্যে খুবই উপযোগী বলা হচ্ছে। গরুর দুধের চেয়ে উটের দুধে লৌহের পরিমান ১০গুণ বেশি। ভিটামিন ও ল্যাকটোজের কারণে উটের দুধ সহজে হজম হয়। এমনকি উটের দুধকে কেউ কেউ সুপার ফুড হিসেবে দাবি করলেও সমালোচকরা বলতে ছাড়ছেন না যে এও বিক্রির এক নয়া কৌশল।

তবে উটের দুধ মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোতে বেদুইনরা শত শত বছর ধরে ব্যবহার করে আসছে। উটের মাংস উপসাগরীয় দেশগুলোতে বেশ জনপ্রিয়। উটের দুধে তৈরি চকলেট, বার্গার, কাবাব জনপ্রিয় হওয়ার পাশাপাশি এখন গুড়ো দুধ কতটা ক্রেতাদের নজর কাড়ে তা দেখার বিষয়। উদ্যোক্তারা বলছেন, যারা পনীর, আইসক্রীম প্রোটিন বার তৈরি করেন তারাও উটের গুড়ো দুধ ব্যবহার করতে পারবেন। ক্যামেলিসিয়াসের জেনারেল ম্যানেজার সাইদ জুমা বিন সুবাই বলেন, উটের দুধ এমনিতেও আরব ও ইসলামি সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যের এক অংশ যা নতুন প্রজন্মের কাছে তাদের উত্তরাধিকারদের পক্ষ থেকে এক সওদা হিসেবেই বিবেচিত হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত