প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়
শিক্ষকদের নির্বাচনে নানা সমীকরণ

ডেস্ক রিপোর্ট : জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) শিক্ষক সমিতির ২০১৮ সালের নির্বাচন আজ। বিশ্ববিদ্যালয়ের নীতি-নির্ধারণী পর্যায়ে তাৎপর্যপূর্ণ ভূমিকা রাখা সংগঠনটির নির্বাচনে প্রতিবারই আওয়ামীপন্থি শিক্ষকদের প্রতিপক্ষ থাকে বিএনপিপন্থি শিক্ষকরা। কিন্তু আজকের নির্বাচনে আওয়ামীপন্থি শিক্ষকদের প্রতিপক্ষ আওয়ামীপন্থি শিক্ষকরাই। ফলে নানারকম সমীকরণে ভরা আজকের নির্বাচন নিয়ে শিক্ষকদের মধ্যে বিরাজ করছে টান টান উত্তেজনা।

প্রতিবছরই ‘বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজ’ নামের সংগঠনের ব্যানারে আওয়ামীপন্থি শিক্ষকরা নির্বাচনে অংশ নেয়। গত ৩ বছরের নির্বাচনে বিপুল ব্যবধানে বিএনপিপন্থি শিক্ষকদের পরাজিতও করেন। কিন্তু এ বছর উপাচার্য পদ নিয়ে ক্ষমতার দ্বন্দ্বে দুই  ভাগে বিভক্ত আওয়ামীপন্থি শিক্ষকরা। একটি বর্তমান উপাচার্য অধ্যাপক ড. ফারজানা ইসলামপন্থি আর অপরটি সাবেক উপাচার্য অধ্যাপক ড. শরীফ এনামুল কবিরপন্থি। নির্বাচনে জয় পেতে মরিয়া দুটি গ্রুপই নির্বাচন কেন্দ্র করে চালিয়েছে জোর প্রচারণা। ৪ বছরের উপাচার্য মেয়াদ শেষ করে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি পুনঃনিয়োগ পেলেও নিজের উপাচার্য পদ নিয়ে ঝুঁকিতে রয়েছেন দেশের প্রথম নারী উপাচার্য ফারজানা ইসলাম। তার জন্য বিপদের কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছেন জাবির শিক্ষক রাজনীতিতে প্রভাবশালী ব্যক্তিত্ব শরীফ এনামুল কবির। আজকের নির্বাচনে শরীফ এনামুল কবিরের প্যানেল সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেলে শিক্ষক রাজনীতিতে আরও প্রভাবশালী হয়ে উঠবেন তিনি। ইতিমধ্যেই দুই উপ-উপাচার্যসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের আওয়ামীপন্থি শিক্ষকদের একটি বিশাল অংশ তার নেতৃত্বে ফারজানা ইসলামের বিরোধিতা করে আসছেন। জাবির দুই উপ-উপাচার্য শহীদ দিবসে ফারজানা ইসলামের সঙ্গে শহীদ মিনারে ফুল দেননি।

তারা ফুল দিয়েছেন শরীফ এনামুল কবিরের সঙ্গে। এছাড়া মানববন্ধন, প্রচারণা, অবরোধ, অবস্থান ধর্মঘট, সংবাদ সম্মেলন এসব কর্মসূচির মধ্য দিয়ে উপাচার্যকে প্রশাসনিকভাবে অসহযোগিতার মাধ্যমে কোণঠাসা করে ফেলা হচ্ছে বলে মনে করছেন জাবির শিক্ষকরা। আজকের নির্বাচনে যদি আশানুরূপ ফল না পাওয়া যায় তবে উপাচার্য আরও কোণঠাসা হয়ে পড়বে বলেই মনে করেন তারা। প্রসঙ্গত, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ক্লাবে সকাল ৯টা থেকে শুরু হয়ে বেলা দেড়টা পর্যন্ত চলবে ভোটগ্রহণ। : বাংলাদেশ প্রতিদিন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত