প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শিক্ষাব্যবস্থা ও সমাজের অবস্থা নিচে নেমে গেছে!

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের শিক্ষক, শহীদ ডাঃ জামিল আক্তার রতন হত্যা মামলার অন্যতম আসামি ও তৎকালীন শিবিরের ক্যাডার এনামুল জহির কর্তৃক রাজশাহী মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থীকে ইভটিজিংয়ের শাস্তির দাবিতে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকতা থেকে তাকে অপসারণের দাবিতে নব জাগরণে ছাত্র সমাজ এক মানববন্ধনের আয়োজন করে।

রোববার সকাল ১১ টায় রাজশাহী শহরের জিরো পয়েন্টে এই মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন নব জাগরনে ছাত্র সমাজের সভাপতি রাকিন আবসার অর্নব। সংহতি রেখে বক্তব্য প্রদান করেন বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান আলী বরজাহান, ৮০’র দশকের ছাত্র নেতা ও ছাত্র মৈত্রীর সাবেক সভাপতি কামরান হাফিজ, রাজশাহী রক্ষা সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জামাত খান, জেলা লোক মোর্চার সহ-সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আলাউদ্দিন আল আজাদ, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রী রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি ফিদেল মনির, বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রীর সাবেক নগর সম্পাদক ও নব জাগরনে ছাত্র সমাজের উপদেষ্টা তামিম শিরাজী, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রী নগর শাখার আহ্বায়ক সৌমিক ডুমরি, রাজশাহী মেডিকেল কলেজের শিক্ষার্থী সেঁজুতি তাসনিম ত্রয়ী, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নেহাল, নারী অধিকার আদায়ের নেত্রী তানজুমান আরা, নারী শীল্প উদ্যোক্তা সেলিনা বেগম, বস্ত্র ব্যবসায়ী সভাপতি আশোক কুমার শাহ্, মোসাঃ শাহীনা বেগম, মোঃ জাহিদ হোসেন, কে.এম জুবায়েদ হোসেন প্রমুখ।

দাবির সাথে আরও সংহতি প্রকাশ করে রাজশাহী উন্নয়ন সংগ্রাম পরিষদ। বক্তারা বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক যদি ইভটিজিং এর মত ন্যাক্কারজনক ঘটনার সাথে জড়িয়ে পড়েন তবে আজকের শিক্ষাব্যবস্থা ও সমাজের অবস্থা কতো নিচে নেমে গেছে তা সহজেই উপলব্ধি করা যায়। সমালোচিত রাবি আইন বিভাগের এই শিক্ষক জহির, শিবিরের ক্যাডার ছিলেন এবং ছাত্র নেতা ডাঃ জামিল আকতার রতন হত্যার অন্যতম হোতা বলে সাক্ষ্য দেন বক্তারা।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত