প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সুষ্ঠু পরিকল্পনা নিলে মেধার স্বাক্ষর রাখা যাবে-ইউজিসি চেয়ারম্যান

সুষ্ঠু পরিকল্পনা নিলে মেধার স্বাক্ষর রাখা যাবে-ইউজিসি চেয়ারম্যানমতিনুজ্জামান মিটু: ইউনিভার্সিটি গ্রান্টস কমিশন অব বাংলাদেশের (ইউজিসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান বলেছেন, দেশে মেধা আছে। সুষ্ঠু পরিচালনা ও পরিকল্পনা নিলে এ মেধার স্বাক্ষর রাখা যাবে।

শনিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর ধানমন্ডিতে স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশের (এসইউবি) মিলনায়তনে ‘বাংলালায়ন-এসইউবি ইন্টার-ইউনিভার্সিটি প্রোগ্রামিং কনটেস্ট-২০১৮’ এর পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, প্রযুক্তিগত উন্নয়নে আশপাশের দেশের চেয়ে আমরা এখনও পিছিয়ে আছি। আরও ভালো কওে প্রযুক্তির উন্নয়ন ঘটাতে হবে।

তিনি আরো বলেন, বর্তমানে পাবলিক ও প্রাইভেট বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে খুব ভালো ভালো প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হচ্ছে। প্রতিযোগিতা করলেই বুদ্ধিমত্তার দিকটি ফুটে ওঠে। প্রতিযোগিতা করলেই বোঝা যায়, কে কতটুকু নিতে পারছে বা নিচ্ছে।

পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অনেকের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাইদ সালাম, প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ারুল কবির, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপদেষ্টা ড. এস.এম. এ ফায়েজ, রেজিস্ট্রার ব্রিগেডিয়ার জেনারেল (অব.) মির্জা এজাজুর রহমান, ট্রেজারার মেজর জেনারেল (অব.) এম. শাহজাহান, কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের প্রধান সহযোগী অধ্যাপক মাসুদ তারেক, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ও পাবলিক হেলথ বিভাগের প্রধান প্রফেসর ডা. নওজিয়া ইয়াসমিন প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বিভাগের লেকচারার ফারহান ফুয়াদ চৌধুরী।

প্রতিযোগিতায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের দল ‘বুয়েট ড্রাকারিস’। প্রথম রানার আপ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ’ডিইউ ড্রাগোনাইট’ এবং দ্বিতীয় রানার আপ হয়েছে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের আরেকটি দল ‘ডিইউ-জিরো অভ ফাইভ’। এ ছাড়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ’ডিইউ মেশিন ম্যান’, নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটির ‘এনএসইউ সরি হাসিব’, বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘বুয়েট ড্রাগনস্টোন’ ও শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সাস্ট টিম এক্স’ যথাক্রমে চতুর্থ, পঞ্চম, ষষ্ঠ ও সপ্তম স্থান অধিকার করে।

পুরস্কারের অংশ হিসেবে সবাইকে নগদ অর্থ ও সনদপত্র দেয়া হয়। চ্যাম্পিয়ন দলকে ২০ হাজার টাকা, প্রথম রানার আপ ১২ হাজার ও দ্বিতীয় রানার আপ দলকে ১০ হাজার এবং বাকি চারটি দলকে ৫ হাজার টাকা করে নগদ অর্থ দেয়া হয়। প্রধান অতিথি ইউজিসি চেয়ারম্যান আবদুল মান্নান বিজয়ীদের হাতে পুরস্কার ও সনদপত্র তুলে দেন।

এদিন সকালে মূল প্রতিযোগিতায় অংশ নেয় প্রতিযোগীরা। গত ২৩ ফেব্রুয়ারি থেকে চতুর্থবারের মতো দুইদিনব্যাপী এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে এসইউবি এর কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগ। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) কম্পিউটার বিজ্ঞান ও প্রকৌশল বিভাগের অধ্যাপক ড. কায়কোবাদের নেতৃত্বে চৌদ্দ সদস্যের বিচারক দল দায়িত্ব পালন করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত