প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দুই মারমা কিশোরী ধর্ষণে জড়িতদের শাস্তির দাবি আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের

রফিক আহমেদ: আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক চঞ্চনা চাকমা বলেছেন, আমরা রাঙ্গামাটির বিলাইছড়িতে দুই মারমা কিশোরী ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনের সঙ্গে জড়িত নিরাপত্তা বাহিনী সদস্যদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে রাজধানীতে কালো পতাকা মিছিল ও সমাবেশ করেছি। শনিবার বাংলাদেশ আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের উদ্যোগে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে বলে চঞ্চনা চাকমা এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানান।

সমাবেশে বক্তারা অবিলম্বে রাঙ্গামাটির বিলাইছড়িতে দুই মারমা বোনকে ধর্ষণ ও যৌন নির্যাতনকারী অভিযুক্ত নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির করা, ভিক্টিমদের পর্যাপ্ত নিরাপত্তা প্রদান ও গৃহবন্দী থেকে মুক্ত করার ব্যবস্থা গ্রহণ এবং রাঙ্গামাটি সদর হাসপাতালে ভিক্টিমদের সহায়তাকারীদের উপর হামলার বিচার করা, পুন:রায় মেডিক্যাল রিপোর্ট প্রকাশ এবং তদন্ত কমিটি গঠন করা, পার্বত্য চট্টগ্রামসহ সারাদেশে আদিবাসী নারীর উপর সহিংসতায় জড়িত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদান করা, আদিবাসী নারীদের নিরাপত্তা দেওয়া, পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি মোতাবেক সকল অস্থায়ী সেনাক্যাম্প ও অপারেশন উত্তরণ প্রত্যাহার করা ও পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি যথাযথ ও পূর্ণাঙ্গ বাস্তবায়নের জন্য রোড ম্যাপ ঘোষণা করার দাবি জানান।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ১৯৯৬ সালের ১২ জুন তৎকালীন হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সাংগঠনিক সম্পাদক পাহাড়ি নেত্রী কল্পনা চাকমাকে সেনাবাহিনী দ্বারা অপহরণ করা হয়েছিল। সেই কল্পনা চাকমার আজও কোন হদিস পাওয়া যায়নি। শুধু তাই নয়, পার্বত্য চট্টগ্রামের আদিবাসীরা প্রতিনিয়ত সেনাবাহিনী কর্তৃক মিথ্যে মামলার শিকার, ধরপাকড়, নির্যাতন, নিপীড়ন, ধর্ষণ ও হত্যার মত ঘটনার মধ্যে দিয়ে দিনাতিপাত করতে বাধ্য হচ্ছে।

হিল উইমেন্স ফেডারেশনের সভাপতি মনিরা ত্রিপুরার সঞ্চালনায় এবং আদিবাসী নারী নেটওয়ার্কের সাধারণ সম্পাদক চঞ্চনা চাকমার সভাপতিত্বে সমাবেশে মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন ফাল্গুনী ত্রিপুরা। উপস্থিত ছিলেন নারী নেত্রী রোকেয়া কবির, রেহনুমা আহমেদ, অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস, সাদিয়া আরমান, জান্নাতুল মরিয়ম, আরডিসির জান্নাত-ই-ফেরদৌসী, সায়দিয়া গুলরুখ, রোকেয়া কবির, রেহনুমা আহমেদ প্রমুখ।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত