প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মিয়ানমারে আরও পাঁচটি টেলিভিশন চ্যানেল আসছে

হাসান : মিয়ানমারের মিডিয়াকে গণতান্ত্রিকীকরণের অংশ হিসেবে এ বছরই সেখানে নতুন পাঁচটি টেলিভিশন চ্যানেলের যাত্রা শুরু হচ্ছে। মিয়ানমারের পাঁচটি প্রাইভেট কোম্পানি এই পাঁচটি টেলিভিশনের সম্প্রচার করবে।

কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে মিয়ানমারের বিগত সামরিক সরকারগুলোর কড়া সমালোচক ডিভিবি মাল্টিমিডিয়া গ্রুপ। কাউং মিয়ানমার অং শিল্প পরিবারের সদস্য এই গ্রুপটি সম্প্রতি রাষ্ট্র-পরিচালিত মিয়ানমার রেডিও ও টেলিভিশনের সাথে চুক্তি করেছে। অন্যান্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে মিজিমা মিডিয়া কোম্পানি, ফরচুন ব্রডকাস্টিং কোম্পানি এবং মাই মাল্টি মিডিয়া গ্রুপ কোম্পানি।

কোম্পানিগুলো এমআরটিভির সম্প্রচার অবকাঠামো ব্যবহার করবে, তবে বিষয়বস্তুর উপর তাদের নিয়ন্ত্রণ থাকবে। আশা করা হচ্ছে, নিজেদের প্রোগ্রাম তৈরির পাশাপাশি তারা বিদেশী চলচ্চিত্র ও টিভি প্রোগ্রামের স্বত্ত্বাধিকার কিনবে। টেলিভিশন সম্প্রচারের ক্ষেত্রে এই্ কোম্পানিগুলোর এটাই প্রথম প্রচেষ্টা।

মিয়ানমারের মাত্র দুটি টেলিভিশন চ্যানেল ছিল, যেগুলোর নিয়ন্ত্রণ করতো তথ্য মন্ত্রণালয় ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়। সরকারী-বেসরকারী অংশীদারিত্ব এবং প্রধান চ্যানেলের সংখ্যা ছয়টিতে উন্নীত করার মধ্য দিয়ে টেলিভিশনের বাণিজ্যিক সম্প্রচার শুরু হয় ২০০০ সালের পরে।

২০১১ সালে মিয়ানমারে যে গন্ত্রতান্ত্রিকীকরণ প্রক্রিয়া শুরু হয়, চ্যানেলের সংখ্যা বাড়ানো সে প্রক্রিয়ারই অংশ। তবে এটা স্পষ্ট নয়, এই পাঁচটি সম্প্রচার প্রতিষ্ঠানই বাণিজ্যিকভাবে লাভজনক হবে কি না। কেএমএ টেলিমিডিয়া হোল্ডিংসের প্রধান থাদো কিয়াওয়ের মতে, এমআরটিভি সুবিধার জন্য প্রদত্ত ভাড়াসহ প্রাথমিক বিনিয়োগের পরিমাণ ৪ মিলিয়ন ডলারের উপরে। কোম্পানিগুলো টেলিভিশন কমার্শিয়াল বিক্রির মাধ্যমে এই বিনিয়োগ উঠিয়ে আনার পরিকল্পনা করছে। তবে মিয়ানমারের সীমিত বিজ্ঞাপনী বাজারের কারণে নিকট ভবিষ্যতে বিষয়টি কঠিন হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত