প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘মাদক রোধে পুলিশ ও সরকারকে আরো তৎপর  হতে হবে’ : এম.এ হাফিজ উদ্দিন

কায়েস চৌধুরী : মাদক রোধে পুলিশ ও সরকারকে তাদের অবস্থান হতে আরো তৎপর হতে হবে। মাদকের ব্যবসার সাথে পুলিশ যে জড়িত রয়েছে, সেটা কনফারেন্সেই তারা স্বীকারও করেছেন। তাহলে দেশ থেকে মাদকের ব্যবসা বন্ধ করবেন কি করে? পুলিশের পোষ্টিংয়ের জন্য লক্ষ লক্ষ টাকা ঘুষ দিতে হয়। সরকার জানে আসলে দেশে কোন দিক হতে মাদকদ্রব্য আসে, তাহলে বন্ধ করা যাবে না কেন? মাদকের ব্যপারে সরকারের আরো সজাগ দৃষ্টি রাখা প্রয়োজন।
মাদক প্রতিরোধ আন্দোলন নিয়ে আলাপকালে সুজন সভাপতি এম.এ হাফিজ উদ্দিন আমাদের অর্থনীতিকে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, এমন কোনো দিন নেই যেদিন মাদকসহ ব্যবসায়ী ধরা পরে না। বিশেষ করে কক্সবাজারে ও টেকনাফ দিয়ে প্রতিদিন লক্ষ লক্ষ টাকার ইয়াবা ট্যাবলেট দেশে প্রবেশ করে। পুলিশ যদি মাদক ব্যবসার সাথে জড়িত থাকে, তাহলে মাদক প্রতিরোধ করা খুবই কঠিন কাজ হবে। এটা অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে কে বা কারা ইয়াবা ব্যবসায় করছে।
তাদের চিহ্নিত করে কঠিন কিছু নয়। সঠিকভাবে চেষ্টা করলে মাদক বন্ধ করা সম্ভব। এ ব্যবসার সাথে তদন্তকারীর বন্ধু-বান্ধব জড়িত আছে বলেই সঠিকভাবে অনুসন্ধান করা হয় না।  তিনি আরো বলেন, যুবসমাজকে মাদকের ভয়াল ছোবলের হাত থেকে রক্ষা করতে প্রথমত মাদকের সহজ প্রাপ্যতা বন্ধ করতে হবে। পরে মাদকের যে ক্ষতিকর দিকগুলো রয়েছে সেগুলো যুবসমাজকে বুঝাতে হবে। পত্রিকা, টেলিভিশনে ব্রিফিং করে কাউন্সিলিংয়ের মাধ্যমে তুলে ধরতে হবে মাদকাসক্ত ব্যক্তিদের করুণ অবস্থা। এছাড়া আর কোন পথ নেই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত