প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শুভ জন্মদিন গাজী মাজহারুল আনোয়ার

শিমুল রহমান : বিশিষ্ট চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব, প্রযোজক-পরিচালক-পরিবেশক এবং একুশে পদকপ্রাপ্ত গীতিকার গাজী মাজহারুল আনোয়ারের জন্মদিন আজ।আজ ২২ ফেব্রুয়ারি, গুণী এ চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্বের ৭৫তম জন্মদিন।  শুভ জন্মদিন ।

১৯৪৩ সালে তিনি কুমিল্লার দাউদকান্দি থানার তালেশ্বর গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন বরেণ্য এই চলচ্চিত্রকার তাঁর লেখা অজস্র বাংলা গান যুগিয়েছে আমাদের মনের খোরাক, সমৃদ্ধ করেছে বাংলা গানের ভাণ্ডার।

গাজী মাজহারুল আনোয়ার বাংলাদেশের একজন স্বনামধন্য চলচ্চিত্র নির্মাতা। এ ছাড়া স্বাধীনতা ও দেশপ্রেম নিয়ে অসংখ্য কালজয়ী গানের স্রষ্টা। তিনি একাধারে গীতিকার, কাহিনিকার, চিত্রনাট্যকার, সংলাপ রচয়িতা, প্রযোজক ও পরিচালক। আয়না ও অবশিষ্ট (১৯৬৭) ছবিতে তিনি প্রথম গান লিখেন। প্রথম পরিচালনা করেন ‘নান্টু ঘটক’ (১৯৮২) ছবিটি। তিনি ২০০২ সালে বাংলাদেশের একুশে পদক লাভ করেন।

শতবর্ষের সেরা বাংলা গান- শিরোনামে বিবিসি একটি জরিপ করেছিল। বিবিসি’র শ্রোতাজরিপে সেরা ২০ গানের মধ্যে অন্যতম তিনটি গান হচ্ছে- ‘জয় বাংলা বাংলার জয়, ‘একতারা তুই দেশের কথা বলরে এবার বল’ ও ‘একবার যেতে দেনা আমার ছোট্ট সোনারগাঁও’। এই তিনটি গানেরই গীতিকার গাজী মাজহারুল আনোয়ার।

তার রচিত উল্লেখযোগ্য গান হচ্ছে- গানের খাতায় স্বরলিপি লিখে, আকাশের হাতে আছে একরাশ নীল, যার ছায়া পড়েছে, শুধু গান গেয়ে পরিচয়, গীতিময় সেইদিন চিরদিন, ও পাখি তোর যন্ত্রণা, ইশারায় শীশ দিয়ে, চোখের নজর এমনি কইরা, এই মন তোমাকে দিলাম, দয়াল কি সুখ তুমি পাও, চলে আমার সাইকেল হাওয়ার বেগে উইড়া উইড়া ইত্যাদি।

তিনি বিভিন্ন সময়ে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার জুরি বোর্ডের সদস্য, চলচ্চিত্র সেন্সর বোর্ড সদস্য এবং বাংলাদেশ চলচ্চিত্র প্রযোজক পরিবেশক সমিতির সাবেক সভাপতির দায়িত্ব পালন করেন। একাধারে তিনি জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার ও একুশে পদকপ্রাপ্ত।

তার পরিচালিত অন্যান্য ছবি হচ্ছে- শাস্তি, চোর, সন্ধি, স্বাক্ষর, স্বাধীন, শ্রদ্ধা, আম্মা, পরাধীন, তগস্যা, উল্কা, ক্ষুধা, রাগী, আর্তনাদ, জীবনের গল্প, এই যে দুনিয়া, পাষানের প্রেম ইত্যাদি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত