প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আমাদের সময় ডটকমে প্রকাশিত সংবাদে বিস্মিত বিএনপি

শিমুল মাহমুদ : বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান ও তার স্ত্রী এবং কন্যা নিয়ে আমাদের সময় ডটকম এ মঙ্গলবার প্রকাশিত সংবাদ নিয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেছে দলটি। ‘তারেকের স্ত্রী, কন্যা, ব্রিট্রিশ নাগরিকত্বের আবেদন চেয়ে দরখাস্ত’ শীর্ষক প্রকাশিত সংবাদটি একেবারেই হীন উদ্দেশ্যে এবং জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে কলঙ্ক লেপনের ভয়াবহ দেশীয় ও আন্তর্জাতিক মাস্টার প্ল্যানের অংশ বলে মন্তব্য করেছেন দলটির যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

বুধবার বিকেলে বিএনপির কেন্দীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন।
রিজভী বলেন, ভারতের অনলাইন পত্রিকাটিতে এই সমস্ত অবান্তর, মনগড়া ও অসত্য তথ্য দিয়ে ঠাসা প্রকাশিত সংবাদটি বাংলাদেশের আমাদের সময় ডটকম এ ফলাও করে প্রচার করায় আমরা বিস্মিত হয়েছি। জাতীয়তাবাদী শক্তিকে সমূলে ধ্বংস করার জন্য জাতীয় ও আন্তর্জাতিক যে চক্রান্ত চলছে এটি তার নগ্ন বহিঃপ্রকাশ।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি জিয়া পরিবারের বিরুদ্ধে এটি একটি সংঘবদ্ধ অপপ্রচার। অন্য দেশের একটি অনলাইনে প্রকাশিত নোংরা অপপ্রচারের উদ্ধৃতি দিয়ে বাংলাদেশে পরিচিত ও প্রচারিত অনলাইন পত্রিকায় সংবাদটি ছাপানো দুরভিসন্ধিমূলক। বিদেশী পত্রিকায় প্রকাশিত সংবাদটি যাচাই-বাছাই না করে বাংলাদেশের অনলাইন পত্রিকাটিতে সেটির উদ্ধৃতি দিয়ে সংবাদ প্রকাশ করা জনগণ ও পত্রিকার পাঠকের প্রতি চরম অবজ্ঞা।

রিজভী বলেন, আমাদের সময় ডটকম এ বিদেশী অনলাইনের উদ্ধৃতি দিয়ে বিএনপি’র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জনাব তারেক রহমান তাঁর পরিবারের প্রতি যে কুৎসা, মিথ্যা ও ব্যক্তিগত চরিত্র হরণের বেপরোয়া ন্যাক্কারজনক অপপ্রচার চালানো হয়েছে আমি দলের পক্ষ থেকে দ্বিধাহীন কন্ঠে তীব্র নিন্দা, ধিক্কার ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

জিয়া অরফানেজ ট্রাষ্ট মামলা প্রসঙ্গে তিনি বলেন, বিচারক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যে রায় দিয়েছেন সেখানে বিচারকের নিরপেক্ষতা সম্পর্কে আমাদের পূর্বের বক্তব্যগুলিরই সত্যতা সুপ্রমানিত হয়েছে। দূর্ভাগ্যের বিষয় বিচারক মহোদয় দেশনেত্রী বেগম জিয়ার বক্তব্যকে সম্পূর্ণ ইচ্ছাকৃতভাবে বিকৃত করেছেন কেবলমাত্র সরকার প্রধানকে সন্তুষ্ট করার জন্য। নিজের চাকরির পদোন্নতির জন্যই তিনি বেগম জিয়ার বক্তব্যকে বিকৃত করে তার রায় লিখেছেন বলে জনগণ মনে করে। ন্যায় বিচারকে পদদলিত করে বিচারক ড. আক্তারুজ্জামান যে কুৎসিত দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন সেজন্য তিনি ইতিহাসে কলঙ্কিত ব্যক্তি হয়ে থাকবেন।

বিএনপির মুখপাত্র বলেন, শেখ হাসিনার জমানায় ইনসাফ যে এখন পালিয়ে বেড়াচ্ছে তা এই ড. আক্তারুজ্জামানদের কারনে। বিচারক ড. আক্তারুজ্জামান জুডিসিয়াল ফ্রড (ঔঁফরপরধষ ঋৎধঁফ) করেছেন। এই বিচারক শিক্ষা ও পেশার সঙ্গে প্রতারনা করেছেন। সৃষ্টিকর্তা মহান আল্লাহ ও জনগণের সাজা থেকে এরা রেহাই পাবে না। পক্ষপাতদুষ্ট এই বিচারকরা সরকারের অনুগ্রহভাজন হওয়ার প্রতিযোগিতায় লিপ্ত থাকায় এই ভোটারবিহীন সরকার গণতন্ত্রকে ধুলোয় লুটিয়ে দেশে অরাজকতা, বিশৃঙ্খলা, হিংসা ও গুম-খুনে আগ্রহী হয়ে উঠেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত