প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

আতিকুল কে নগর পিতা হিসাবে দেখতে চায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

শাকিল আহমেদ: আতিকুল ইসলাম একজন পরিচ্ছন্ন ব্যক্তিত্ব, নেতৃত্ব দেয়ার মতো গুন তার মধ্যে রয়েছে। আগামীতে তাকে নগর পিতা হিসাবে দেখতে চাই। তিনি একজন সফল ব্যবসায়ী ও বিজিএমইয়ের সফল নেতা। তাকে আমরা ভালো মানুষ হিসাবে ভালো যানি। তিনি উত্তরা বাসীর মন জয় করেছেন।

বুধবার উত্তরা কল্যান সমিতি সেক্টর-৪, বাংলাদেশ ক্লাব লিঃ ও হাটি হাটি খাই খাই আয়োজিত আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন উপলক্ষে “ফিরে দেখা অমর ২১” অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে আতিকুলের প্রশংসা করে এ সব কথা বলেন স্বরাষ্ট্রামন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

মন্ত্রী বলেন, সারা বিশ্বে অমর একুশের আজকের দিবসটি আর্ন্তজাতিক ভাবে পালিত হচ্ছে। শ্রদ্ধার সাথে স্বরন করছি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে। ভাষা আন্দোলন টির সূত্রপাত টি তিনিই গড়ে দিয়েছিলেন। ৫২ পরে ৫৪ এর পরে ৬২ ও ৬৬ এবং ৬৯ এর পরেই মহান মুক্তিযুদ্ধ। কয়েকটি ধাপ পেরিয়ে আমরা দেশটাকে স্বাধীন করেছি।
তিনি বলেন, স্বাধীনতার মুলে ছিলো বাংলা ভাষা, বাংলা সংস্কৃতি। আজকে বিশ্বে বাংলাদেশের কথা সবাই চিন্তা করে, বংলাদেশের কথা আসলে সবাই সমিহ করে। বাংলাদেশে বিরত্বের ইতিহাস রয়েছে বাংলাদেশ আর কোন দিন পিছিয়ে থাকবেনা। এ দেশ আর কোন দিন অন্ধকারে নিমজ্জিত হবে না।

অনুষ্ঠানে র‌্যাবের মহা পরিচালক বেনজীর আহমেদ বলেন, বাংলা ভাষা পৃথিবীর সাত নম্বর ভাষা। বিশ্বের প্রায় ৩৫ কোটি মানুষ এ ভাষায় কথা বলে। তারাও কোন না কোন ভাবে দিবসটি পালন করছে। জাপান ও চায়নাতে বংলা ভাষার গবেষনা হচ্ছে। এক সময় বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে বাংলাদেশে বংলা ভাষায় মানুষ পড়তে আসবে বলে বিশ্বাস করি।

পুলিশ মহা পরিদর্শক জাবেদ পাটোয়ারী বলেন,পৃথীবিতে ভাষার জন্য জীবন দেয়ার ইতিহাস বিরল।এ ছাড়া সূদুর দেশ সিয়েরা লিওন বাংলা ভাষাকে মর্যাদা দিয়েছে। সারা বিশ্বে দিবসি আর্ন্তজাতিক ভাবে পালিত হচ্ছে এটা আমাদের জন্য গর্বের।

বিজিএমইয়ের সাবেক সভাপতি আতিকুল ইসলাম বলেন, বাংলাদেশ ছাড়া বিশ্বের কোথাও রক্ত দিয়ে ভাষা রচিত হয়নি। বাংলা ভাষাকে ছড়িয়ে দিতে কাজ করতে হবে। তিনি বলেন,স্মার্ট ফোনের মাধম্যে হতাশা তৈরী। সন্তানের দিকে সবার খেয়াল রাখতে হবে। আমরা স্মার্ট ফোন দিয়ে ভালো কিছু শিখতে চাই। এসময় তিনি উত্তরা বাসীর জন্য জাতীয় ভাবে বই মেলা আয়োজনের দাবী জানায়।
সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব রামেন্দু মজুমদার বলেন, সরকারী-বেসরকারী ভাবে বাংলা ভাষা ব্যবহার বাড়ানো প্রয়োজন।
অনুষ্ঠান শেষে চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহনকারী ২৫০ জনের মধ্য থেকে বিজয়ী পাঁচ জন কে পুরস্কার বিতরন করেন স্বরাষ্ট্রা মন্ত্রী।
অনুষ্ঠানে আরোও উপস্থিত ছিলেন, ঢাকা ১১ আসনের সংসদ সদস্য ও বিশেষ অতিথি এ কে এম রহমত উল্লাহ, বাংলা একাডেমির ইমেরিটাস প্রেসিডেন্ট ডা. আনিসুজ্জামান, এফবিসিসিআই প্রেসিডেন্ট মোঃ সফিউল ইসলাম মহিউদ্দিন, চলচ্চিত্র অভিনেতী মিসেস রোজিনা, উত্তরা কল্যান সমিতি সেক্টর-৪ এর সভাপতি মেজর (অব) আনিসুর রহমান।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত