প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দুর্নীতির লিখিত অভিযোগ চাইলে প্রধান বিচারপতি

ডেস্ক রিপোর্ট : প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন বলেছেন, ‘আদালতের যত অনিয়ম-দুর্নীতি রয়েছে, তা বার (আইনজীবী সমিতি) সভাপতির কাছ থেকে লিখিত আকারে পাওয়ার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। অভিযোগ লিখিত আকারে হাতে পেলে সম্মিলিতভাবে তা দূর করা হবে।’

রবিবার (১৮ ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় সুপ্রিম কোর্টের শহীদ শফিউর রহমান মিলনায়তনে শওকত আলী খান’স অ্যাসোসিয়েটসের উদ্যোগে আয়োজিত ব্যারিস্টার শওকত আলী খানের স্মরণসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘ব্যারিস্টার শওকত আলী খান এই কোর্টের জন্য কারাবরণ করেছিলেন। তাই শওকত আলী খানের এ স্মরণসভা সফল এবং কার্যকর হবে যদি এই কোর্টের যত অনিয়ম আছে, সেগুলো আমরা সম্মিলিতভাবে দূর করতে পারি।’

আদালতের অনিয়মের প্রসঙ্গ তুলে প্রধান বিচারপতি আরও বলেন, ‘সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি (অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন) যেদিন আনুষ্ঠানিকভাবে আমার সঙ্গে দেখা করেছেন, আমি তাকে বলেছি কোর্টের কোথায় কী অনিয়ম আছে সেটা আপনি বলুন। তিনি বললেন, এখন তো আপনাকে বলা যাবে না, আমি লিখিতভাবে আপনাকে জানাবো। তাই আদালতের যত অনিয়ম-দুর্নীতি রয়েছে তা বার (আইনজীবী সমিতি) সভাপতির কাছ থেকে লিখিত আকারে পাওয়ার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছি। এসব অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগ লিখিতভাবে হাতে পেলে সম্মিলিতভাবে তা দূর করা হবে।’

প্রধান বিচারপতি প্রয়াত ব্যারিস্টার শওকত আলী খান সম্পর্কে স্মৃতিচারণ করে বলেন, ‘আমি যখন বারের সদস্য হই, তখন তিনি এখানে প্র্যাকটিস করতেন। তার সঙ্গে আমার ব্যক্তিগত যোগাযোগ ছিল। তিনি একজন ব্যক্তিত্বপূর্ণ মানুষ ছিলেন।’

স্মরণসভায় ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘সমাজে ন্যায়ের জন্য, আইন প্রতিষ্ঠার জন্য যারা সংগ্রাম করে গেছেন, তারা আমাদের কাছে স্মরণীয় হয়ে আছেন। ব্যারিস্টার শওকত আলী খান তাদের মধ্যে অন্যতম। তরুণ আইনজীবীদের কাছে তিনি অনুসরণীয় হয়ে থাকবেন।’

ব্যারিস্টার শওকত আলী খানের নাতি ব্যারিস্টার রেহান হোসেনের সভাপতিত্বে স্মরণসভায় সাবেক স্পিকার ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ব্যারিস্টার এম. আমির-উল ইসলাম, অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট জয়নুল আবেদীন, আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন, সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শ. ম. রেজাউল করিম, অ্যাডভোকেট কেএম সাইফুজ্জামান প্রমুখ স্মৃতিচারণ করেন।

বীর মুক্তিযোদ্ধা ব্যারিস্টার শওকত আলী খান ১৯২৬ সালে টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার থানার লাউহাটি গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯৫৭ সালে আইন পেশায় নিয়োজিত হন। তিনি সংবিধান প্রণেতাদেরও একজন। এছাড়া, সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি, আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য ও আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষের দায়িত্ব পালন করেন। ১৯৭২ সালে তিনি টাঙ্গাইলের নাগপুর এবং মির্জাপুরের সংসদ সদস্য ছিলেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ