প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মানুষ মারা তো সন্ত্রাসীদের কাছে দুধ ভাতের মতো বিষয়

ড. জিনাত হুদা : এক সন্ত্রাসী আরেক সন্ত্রাসীকে মেরেছে, এটাতো আমার কাছে অদ্ভুত বা অস্বাভাবিক কিছু মনে হচ্ছে না। কারণ, সন্ত্রাসীদের প্রকৃতি বা চরিত্রই এমন। আমাদের মধ্যে যারা জগতের সাথে মিলে যায় বা একত্রিত হয়ে যায়, তাদের কাছে কে সন্ত্রাসী, কে অসন্ত্রাসী, কে মন্দ, কে ভাল তা বিবেচ্য নয়। এগুলো আসলে কোন বিচারের বিষয়ই হয় না। এরা এমনভাবে বড় হয় বা বেড়ে ওঠে, এদের কে এমনভাবে প্রশিক্ষিত করা হয় যে এদের কাছে এগুলো কোন বিষয়ই না। ফলে একজন সন্ত্রাসী অন্য সন্ত্রাসীকে মেরে ফেলবে, এগুলো আমার কাছে খুবই স্বাভাবিক বলে মনে হয়।

কারণ হলো এক. সন্ত্রাসীদের প্রকৃতিটাই এমন, দুই. এক সন্ত্রাসী আরেক সন্ত্রাসীর গোপন কথাগুলো জানে। “ক” কি কি অপরাধ করেছে “খ” কি কি অপরাধ করেছে এগুলো তারা একে অন্যের সম্পর্কে জানে। সুতরাং উভয়কে যখন বিচারের আওতায় আনা না হবে, তখন তারা একে অপরের বিরোধিতা করবে এটাই স্বাভাবিক। তখন একজন চিন্তা করে অন্যজনকে মেরে ফেললেই তো তার অপরাধ গুলো ঢেকে যাবে, তাই অন্যকে মারার একটি পায়তারা চলে। এই যে একটি চিন্তা ভাবনা, তাদের কে এধরণের কাজ করতে আগ্রহী করে তুলে। কারণ, মানুষ মারাতো তাদের কাছে একপ্রকার দুধ ভাতের মত বিষয়।

হ্যাঁ, বিচারের আওতায় আনা প্রয়োজন। কিন্তু আমাদের দেশে সাধারণ মানুষতো তাদের বিরুদ্ধে বলতে ভয় পায়। কেউ তাদের সম্পর্কে বলতে চায় না। আমাদের দেশের নিয়মানুযায়ী পুলিশ তো কারো দোষ ছাড়া ধরেতে পারে না। তাই তাদের দোষের সুস্পষ্ট প্রমাণ দিয়ে তাদের ধরতে হবে। নইলে দিন দিন এধরনের সন্ত্রাসী কর্মকান্ড বাড়তেই থাকবে।

পরিচিতি : অধ্যাপক, সমাজবিজ্ঞান বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
মতামত গ্রহণ : সানিম আহমেদ
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত