প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

চীনকে ঠেকাতে দেরাদুনে সুখয় মোতায়েন করবে ভারত

আসিফুজ্জামান পৃথিল: ভারতের উত্তরখন্ডের রাজধানী শহর দেরাদুনের একটি বিমানবন্দরে অস্থায়ীভাবে দু’টি সুখয় এমকেআই ডিটাচমেন্ট পরিচালনা করতে যাচ্ছে দেশটির বিমানবাহিনী। আগামী ২১ ও ২২ ফেব্রুয়ারি বেসামরিক বিমানবন্দর জলি গ্রান্ট থেকে এই ডিটাচমেন্টগুলি পরিচালিত হবে। মনে করা হচ্ছে চীনকে ঠেকানোর মহড়া হিসেবে এই সুখয় মোতায়েন হচ্ছে বলে সংশ্লিষ্ট মহল ধারণা করছে।

বিমান বাহিনীর এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, এলাকাটি সম্পর্কে পরিচিত হতে জলি গ্রান্ট এয়ারপোর্ট থেকে দ’ুদিন ডিটাচমেন্টটি পরিচালনা করা হবে। পরে জঙ্গিবিমানগুলো মূল ঘাঁটিতে ফিরে যাবে।

ভারতীয় বিমানবাহিনীর এই তৎপরতাকে নিকট ভবিষ্যতে চীনের সম্ভাব্য হামলার মুখে প্রস্তুতি হিসেবে দেখা হচ্ছে। অতীতে বেশ কয়েকবার চীনা বিমান/হেলিকপ্টার উত্তরখন্ড ও হিমাচল প্রদেশের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে বলে অভিযোগ রয়েছে।

ভারতের সঙ্গে চীনের ৪,০০০ কিলোমিটার সীমান্ত জুড়ে চীনা সৈন্যদের জোর তৎপরতার প্রেক্ষাপটে বিমানবাহিনী ওই উদ্যোগ গ্রহণ করে। উত্তরখন্ডের সঙ্গেও চীনের সীমান্ত রয়েছে।

কর্মকর্তারা জানান, দেরাদুনের কাছে এ বিমানবন্দর থেকে দ’ুটি সুখই মাল্টিরোল ফাইটার পরিচালনা করবে বিমান বাহিনী। ভবিষ্যতে কোন প্রয়োজন পড়লে তৎপরতা যেন বাড়ানো যায় সে লক্ষ্যে এই উদ্যোগ।

বিমানবাহিনীর বিবৃতিতে বলা হয়, বিভিন্ন বেসামরিক বিমানবন্দর সক্রিয় করার নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে দেরাদুনের জলি গ্রান্ট বিমানবন্দর থেকে দ’ুটি সু-৩০এমকেআই ফাইটার পরিচালনা করা হবে।

গতবছর জুনে উত্তরখন্ডের চামলি জেলায় একটি সন্দেহভাজন চীনা হেলিকপ্টার উড়তে দেখা গেছে বলে জানা যায়।

তখন চামলি পুলিশের এসপি ত্রিপাটি ভাট সংবাদ মাধ্যমকে বলেছিলেন, ভারতের সীমারেখা লঙ্ঘন করে হেলিকপ্টারটি তিন থেকে পাঁচ মিনিট ওড়াওড়ি করে।

এদিকে বিতর্কিত অরুণাচল প্রদেশে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সফর নিয়ে গত বৃহস্পতিবার চীন তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে। এই ভূখন্ডটিকে তার তিব্বতের অংশ বলে চীন দাবি করে। এবং চীনের মানচিত্রে অরুণাচলকে দক্ষিণ তিব্বত বলে চিহ্নিত করা আছে। সাউথ এশিয়ান মনিটর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত