প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

শুধু মলিক নয় চা-শ্রমিকদের কল্যাণেও কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী

হ্যাপী আক্তার: চা শিল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্টদের জীবন মানের উন্নয়নে বহুমুখী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুধু মলিক নয় চা-শ্রমিকদের কল্যাণেও কাজ করছে সরকার।

রোববার সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু কনভেনশন সেন্টারে বাংলাদেশ চা প্রদর্শনীর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

চায়ের গুণগত মান বৃদ্ধিতে গবেষণা ও নতুন বাজার তৈরি করতে প্রয়োজনীয় সহায়তা দিবে সরকার বলেও জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকে শুধু চা মালিক নয় শ্রমিকদের জন্যও বহুমুখী কল্যাণের জন্য পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে সরকার। চা-শ্রমিকরা যেন সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হয়, তাদের সন্তানরা যেন শিক্ষাসহ উন্নত জীবন যাপন করতে পারে তা নিশ্চিত করতে সরকার নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।

চা আমাদের জীবনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে। যদিও চা আমাদের কোনও আদি অভ্যাস নয়। ব্রিটিশরাই প্রথম চায়ের আবিষ্কার করে। প্রথমে তারা বিনা পয়সায় চা খাওয়াত। বিনা পয়সায় চা ধরিয়ে দিয়ে আমাদের অভ্যাস করিয়েছে। এরপর বাংলাদেশে চা উৎপাদনকারী ও রপ্তানিকারী একটি দেশে পরিণত হয়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, চা আজকে একটি জনপ্রিয় পানীয়। চায়ের অনেক বৈচিত্রও দেখা যায়। ১৮৫৪ সালে ব্রিটিশরা বাংলাদেশে চা চাষ প্রথম শুরু করেছিলো সিলেটের মালনি ছড়ায়। চা চাষের মধ্য দিয়ে যেমন কর্ম সংস্থান হয়েছে তেমনি বাংলাদেশের রপ্তানি আয় বৃদ্ধি পায়। তার সাথে সাথে গ্রামীণ দরিদ্র হ্রাস তার জন্য চা একটি বিরাট অবদান রেখেছে।

তিনি বলেন, চা শ্রমিকদের উরিষ্যা বিহার থেকে এনে তাদের চা বাগানে কাজ করাতো কিন্তু তাদের কোনো নাগরিকত্ব, কোনও অধিকার এবং ভোটের অধিকারও ছিলো না। চা শ্রমিকদের প্রথম আওয়ামী লীগ সরকার চা শ্রমিকদের ভোটের অধিকার দেয়।

যে শ্রমের মাধ্যমে জীবন জীবিকা চলে সে কাজটি পূর্ণ দায়িত্বে নিয়ে পালন করার জন্য চা-শ্রমিকদের প্রতি আহ্বান জানান শেখ হাসিনা।

বক্তব্যের এক সময় তিনি একুশে ফেব্রুয়ারি ভাষায় কথা উল্লেখ করে বলেন, ফেব্রুয়ারি আমাদের ভাষা অধিকারের মাস। এই ভাষা মাতৃভাষার অধিকারের আন্দোলন শুরু করেছিলেন বঙ্গবন্ধু যখন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের ছাত্র। যখন পাকিস্তানিরা আমাদের কাছ থেকে মাতৃভাষা কেড়ে নিয়ে উর্দুকে চাপিয়ে দেবার চেষ্টা করেছিলো। কিন্তু তখন পাকিন্তান নামের দেশটিতে ৫৬ ভাগই ছিলো বাঙালি। কিন্তু বাঙালির মাতৃভাষার অধিকারের যে আন্দোলন তার সূত্রপাত সেটা ১৯৪৮ সালের ১১ মার্চ থেকে শুরু হয়েছিলো বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে।

এসময় ভাষা আন্দোলনের শহীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

এর আগে রাজধানীর মতিঝিলে ৩০ তলার বঙ্গবন্ধু চা ভবনের ভিত্তিফলক উন্মোচন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সূত্র: যমুনা টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত