প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বইমেলায় রাজু আহমেদের ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পরিকল্পনা ও দারিদ্র্যবিমোচন’

উম্মুল ওয়ারা সুইটি : অমর একুশে গ্রন্থ ’মেলায় প্রকাশিত হয়েছে সাংবাদিক রাজু আহমেদের প্রথম বই ‘বাংলাদেশের অর্থনৈতিক পরিকল্পনা ও দারিদ্র্যবিমোচন’। উন্নয়ন ও অর্থনীতি বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে লেখা ১২টি গবেষণা প্রতিবেদন ও বিশ্লেষণধর্মী প্রবন্ধ নিয়ে বইটি প্রকাশ করেছে পালক পাবলিশার্স।

আনুষ্ঠানিকভাবে বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন লেখকের মা নূরজাহান বেগম। এ সময় বড় ভাই আমিনুর রহমান বলেন, ছোট ভাই মিল্লাত হোসেন, শ্বশুড় আবদুল করিম শেখ, শ্বাশুড়ী আনোয়ারা বেগমসহ বন্ধুবান্ধব, সহকর্মী ও আত্মীয়-স্বজন উপস্থিত ছিলেন।

বইটির ভূমিকায় অর্থনীতিবিদ অধ্যাপক এমএম আকাশ লিখেছেন, ‘এই বইয়ের লেখাগুলো একদিকে খুবই তথ্যসৃমদ্ধ, আরেকদিকে এগুলোর সব বিশ্লেষণেই রয়েছে গণমুখী মূল্যবোধের সুস্পষ্ট অভিপ্রকাশ। সাধারণ পাঠক, নাগরিক, অর্থনীতির ছাত্র, গবেষক, নীতি-নির্ধারক সকলেই এসব লেখা পাঠ করে অনেক প্রাসঙ্গিক তথ্য ও ইস্যু নিয়ে গভীরভাবে ভাবার জন্য অনুপ্রাণিত হবেন। লেখাগুলো ভবিষ্যতে আরোগবেষণার ক্ষেত্রেগুলি চিহ্নিত করতে সহায়ক  হবে। কোন্ সুনির্দিষ্ট জায়গাটাতে এ দেশের সাধারণ মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, জাতীয় স্বার্থ বিসর্জিত হয়েছে তা চিহ্নিত করতে এই লেখাগুলি খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারে। তাই আগ্রহী পাঠক যদি এই বইটি কিনেন এবং পাঠ করেন, তাহলে তারা ঠকবেন না এ কথা আমি নিশ্চিতভাবে বলতে পারি।’

বইটিতে স্থান পাওয়া লেখাগুলো হলো ‘বাংলাদেশের উন্নয়ন পরিকল্পনা ও দারিদ্র্য বিমোচন’, ‘বাংলাদেশে বিশ্বব্যাংক-আইএমএফ-এডিবি’র তৎপরতা : তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দু’ বছর’, ‘বাংলাদেশে এডিবি : উন্নয়ন সহযোগী নাকি সুদখোর মহাজন’, ‘বিদেশি বিনিয়োগ থেকে কী পাচ্ছে দেশ’, ‘বিশ্বমন্দার প্রেক্ষাপটে বাংলাদেশের শ্রমিক-স্বার্থ, ‘অবহেলিত দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল : সংকট ও সম্ভাবনা’, ‘ব্যাংক ঋণের সুদের হার: আবাসন শিল্প ও বিনিয়োগে প্রভাব’, ‘বাজার ব্যবস্থপনায় টিসিবির ভূমিকা’, ‘বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক বাস্তবতা এবং অপ্রাতিষ্ঠানিক খাত’, ‘তৈরি পোশাক শিল্পে শ্রম অধিকার’, ‘প্রবাসী শ্রমিকদের মানবাধিকার রক্ষায় করণীয়’ এবং ‘পানি সরবরাহ ব্যবস্থপনা: নাগরিক অধিকার বনাম বাণিজ্য চিন্তা’।

‘বাংলাদেশের উন্নয়ন পরিকল্পনা ও দারিদ্র্যবিমোচন’ বইটির মূল্য ৪০০ টাকা। একুশে গ্রন্থমেলায় সোহরাওয়ার্দী  উদ্যানে পালক পাবলিশার্সের ২৮৩, ২৮৪ ও ২৮৫ নম্বর স্টলের পাশাপাশি বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গনে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির ৬৭ নম্বর স্টলে বইটি পাওয়া যাবে।

বইটির লেখক রাজু আহমেদ বর্তমানে বেসরকারী টেলিভিশন চ্যানেল জিটিভিতে প্রধান প্রতিবেদক হিসেবে কর্মরত। সাংবাদিকতার পাশাপাশি আর্থ-সামাজিক বিভিন্ন বিষয়ে লেখালেখি করছেন। তিনি ২০০৬ সালে প্যানোস সাউথ এশিয়া ফেলোশিপ, ২০০৭ সালে ইউএনএফপিএ রিপোটিং অ্যাওয়ার্ড, ২০০৮ সালে এফপিএবি সাংবাদিকতা পুরস্কার, ২০১১ সালে ইআরএফ অ্যাওয়ার্ড, একই বছর ইউএনএফপিএ-ডিজিএফপি জার্নালিজম অ্যাওয়ার্ড, ২০১৩ সালে সিএসএফ-ফ্রেড হলোস ফাউন্ডেশন ফেলোশিপ অ্যাওয়ার্ড এবং ২০১৪ সালে ডিআরইউ-গ্রামীণফোন বেস্ট রিপোর্টিং অ্যাওয়ার্ড লাভ করেন।

রাজু আহমেদ পেশাগত কাজের পাশাপাশি সংগঠক হিসেবে সাংবাদিকদের কল্যাণে ভূমিকা রাখার চেষ্টা করছেন। তিনি ২০১৬ সালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) সাধারণ সম্পাদক পদে দায়িত্ব পালন করেন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত