প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কৌশলগত মালিকানা নিয়ে বিএসইসি’র অপতৎপরতা বন্ধের আহ্বান নাগরিক পরিষদের

ফয়সাল মেহেদী : বাংলাদেশের স্বার্থরায় প্রধান শেয়ারবাজার ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) কৌশলগত মালিকানা নিয়ে নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অপতৎপরতা বন্ধের আহ্বান জানিয়েছে নাগরিক পরিষদ।
শনিবার এক বিবৃতিতে পরিষদের আহ্বায়ক মোহাম্মদ শামসুদ্দীন বলেন, ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) কৌশলগত মালিকানা নিয়ে ভারতের পে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) অনৈতিক চাপ প্রয়োগ শেয়ারবাজারকে দিল্লির হাতে সমর্পনের অপচেষ্টা।
তিনি বলেন, শেয়ারবাজার লুটের হোতা সালমান এফ রহমান, মোসাদ্দেক আলী ফালু, লোটাস কামাল, লুৎফর রহমান বাদল এবং ভারতীয় মাড়োয়ারীদের বিরুদ্ধে ড. ইব্রাহিম খালেদের রিপোর্টের সুপারিশ বাস্তবায়ন না করে, লাখ লাখ বিনিয়োগকারীদের যারা সর্বশান্ত করেছে তাদের বিচার না করে বিএসইসি জনস্বার্থ রায় সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ হয়েছে।
শামসুদ্দীন বলেন, এখন আবার সর্বোচ্চ দরদাতাকে কৌশলগত মালিকানায় অংশীদারিত্ব না দিয়ে ভারতের পে অনৈতিক চাপ প্রয়োগ করে বাংলাদেশের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে ভারতের স্বার্থরায় দিবাচোরের বেশ ধারণ করেছে। এতে প্রমাণ হয় তাদের মধ্যে ভারতীয় এজেন্ট ঘাপটি মেরে আছে। অবিলম্বে তাদের চিহ্নিত করে নির্মূল করতে ব্যর্থ হলে রাকেশ আস্তানার মত রাজকোষ ধ্বংসের লীলানৃত্যের ধ্বনি আবারো ঝংকৃত হবে শেয়ারবাজারে।
তিনি আরও বলেন, শেয়ারবাজারকে রা করতে ব্যর্থ হলে সংস্কৃতির আগ্রাসনে ভারতীয় চ্যানেল বাংলাদেশের বাজার দখলের মত ভারতীয় পুঁজির সেবাদাসে পরিণত হবে বাংলাদেশের শেয়ারবাজার। বিনিয়োগকারীরা অসহায় হয়ে আত্মসমর্পন করে সর্বস্ব হারিয়ে নিঃস্ব অবস্থায় আর্তনাদ করবে। যা ১৯৯৬ ও ২০১০ সালকে হার মানাবে। তাই দেশের স্বার্থে অবিলম্বে কৌশলগত অংশীদার বাছাইয়ে অনৈতিক চাপ প্রয়োগ থেকে বিএসইসিকে বিরত থাকার আহ্বান জানান তিনি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত