প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দান করতে সতর্ক হোন

মারুফ বিল্লাহ তাক্বী: এক লোক নবি কারিম সা. এর কাছে ভিক্ষা চাইতে আসলেন। দয়ালু নবী মোহাম্মদ সা. তাকে জিজ্ঞাসা করলেন তোমার কোন সম্বল নেই? সে ভিক্ষুক বল্ল,আমার সম্বল সুধু একটি মাত্র কম্বল। নবি কারিম সা. তাকে বললেন সে কম্বল বিক্রি করে একটি কুড়াল কিনো অত:পর কুড়াল দিয়ে পাহার থেকে কাঠ কেটে ব্যবসা কর। উম্মতের জন্য দয়ালু নবির শিক্ষা করোনা ভিক্ষা, শেষ চেষ্টাটুকো করো।

অথচ আমাদের দেশ নবির আদেশের বিপরিতে ভিক্ষা একটি ব্যবসায় পরিণত হয়েছ। মানুষ এখন ভিক্ষা ছেড়ে কর্ম ধরে না উলটো কর্ম ছেড়ে ভিক্ষা ধরে এখনতো এটাকে একটা পেশাই মনে করে।
গত রমজান পথশিশুদের ইফতার করাতে গিয়ে পরিচিত হই এক ছুট্ট বন্ধুর সাথে, তার বাবা নেই চাচার কাছেই থাকে। তার চাচা তাকে দিয়ে ভিক্ষা করায়, সে প্রত্যেকদিন ৫০০ টাকা আয় করে, তাহলে মাসে আয় করে ১৫০০০ হাজার। কোন শ্রমিক মাটি কাটলে দৌনিক ৫০০টাকা পায়। কোনটা ভাল? সারাদিন মাটি কাটা নাকি হেটে হেটে হাত পাতা? কোনটায় বেশী টাকা?

পত্রপত্রিকা ও মিডিয়ার সাথে যাদের সম্পর্ক আছে তাদের কাছে এসব পুরাতন কিছু নয়। কারণ তারা প্রতিনিয়ত পড়ে, ভিক্ষুক সাত তালা ভবনের মালিক, ভিক্ষুক ভিক্ষা করার জন্য তার নিজস্ব পাজারু গাড়ি দিয়ে আসে, আরো কত কি।

ভিক্ষুকদের ব্যবসা এখন জমজমাট। রাস্তার পথিকদের সামনে প্রতিবন্ধী অথবা ইয়াতিম সেজে, যাত্রীদের কাছে কাগজ এর সাথে চকলেট নিয়ে, প্রতিষ্ঠানে প্রথিষ্ঠানে হাজির হয় অভিনেতার সাজে।এদের মত ধোঁকাবাজদের জন্য সত্যকারের মিসকিনরা অনহারে মরছে, তাদের মত আভিনয় পারেনা দেখে ডাস্টবিনের ময়লা রুটি খেয়েই তাদের দিনকাল কাটছে। সব সত্য কথা সবকিছুই বাস্তবতা। সুতরাং সতর্ক হোন,সাবধান হোন। কাকে দান করছেন? কেনো করছেন? এসব বুঝে তারপর দান করুন। আপনার কষ্টের টাকা কাজে গেলো নাকি জলে, তাও ভাবুন। তবে হ্যা.. সতর্কতা বলতে এই নয় যে, আপনি মুমিনের দান করার সুন্দর সিফাতটিকে অবহেলা করে ছেড়ে দিবেন। রাস্তা-ঘাটে কিংবা যানবাহনে মাসজিদ মাদ্রাসার জন্য অনুদান চাইলে যদি বিশ্বাস নাহয় তাহলে সেখানেই না দিয়ে নিজেই মাদ্রাসায় গিয়ে দান করুন। পথেঘাটে অভিনেতা ভিক্ষুকদের দান না করে পরিচিত কিংবা সত্যকারের মিসকিনদের দেখে দান করুন তাহলেই আপনার দান কাজে আসবে, তা নাহলে জলে যাবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত