প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যুক্তরাষ্ট্র হুমকি ও চাপ দিলে মিয়ানমারের টনক নড়বে : সুমিত গাঙ্গুলী

হ্যাপী আক্তার : জাতিসংঘে যুক্তরাষ্ট্রের স্থায়ী প্রতিনিধি নিকি হ্যালি নিরাপত্তা পরিষদকে মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চি’র ওপর আরো বেশি চাপ দেবার জন্য আহ্বান দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে যে ভয়ানক কর্মকা- চলছে সে জন্য মিয়ানমার বাহিনীকে দায় নিতে হবে এবং এক্ষেত্রে কোনো রকরেমর ওজর আপত্তি চলবে না।

যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানা বিশ্ববিদ্যালয়ের কুটনীতি এবং নিরাপত্তা বিষয়ের শিক্ষক অধ্যাপক সুমিত গাঙ্গুলী এ বিষয়ে বলেছেন, মিয়ানমার শুধু হুমকিতে ভয় পাবে না। হুমকির সাথে যুক্তরাষ্ট্র চাপ দিলে তাতে মিয়ানমারের টনক নড়বে।

মিয়ানমার ওপরে যে হুমকি আসতে পারে তা তারা শুনে অভ্যস্ত। মিয়ানমার তো অনেক দিন এক ঘরে হয়েছিলো। তাহলে কি নতুন করে যুক্তরাষ্ট্রের কোনো হুমকিতে মিয়ানমার সরকার আসলেই ভয় পাবে?

এ প্রশ্নেন জবাবে সুমিত গাঙ্গুলী আরো বলেন, নিকি হ্যালি মিয়ানমারকে যদি শুধু বলে যে আপনারা যে কাজগুলো করছেন সেগুলো খুবই ক্ষতিকর, এগুলো বন্ধ করা দরকার এতে কিছুই হবে না।

মিয়ানমারের বিরুদ্ধে এককভাবে কোনো পদক্ষেপ নেবার সুযোগ কি যুক্তরাষ্ট্রের রয়েছে?

এ প্রসঙ্গে সুমিত বলেন, দু-একটা পদক্ষেপ আছে যেমন- যুক্তরাষ্ট্র মিয়ানমারের ওপরে আরো চাপ বাড়াতে পারে। এতে করে মিয়ানমারের যথেষ্ট ক্ষতি হতে পারে। ইউনাইটেড নেশনসের সিকিউরিটি কাউন্সিলের মধ্য দিয়ে চাপ বাড়ানো সম্ভব না। চীন অথবা রাশিয়া এরা বাধা দেবে। তবে যুক্তরাষ্ট্র নিজে আরো চাপ সৃষ্টি করতে পারে মিয়ানমারের ওপর। আর সেটা সাংঘাতিক ক্ষাতিকর হতে পারে। যুক্তরাষ্ট্রের উচিত অব্যাহতভাবে মিয়ানমারকে চাপ দেওয়া।

সুমিত গাঙ্গুলী বলেন, মিয়ানমারে যুক্তরাষ্ট্র বাণিজ্য বন্ধ করে দিতে পারে। মিয়ানমার থেকে জিনিস-পত্র কেনা বন্ধ করে দিতে পারে। মিয়ানমারে যে সব নাগরিক যুক্তরাষ্ট্র যেতে ভিসার আবেদন করছে তা বন্ধ করতে পাারে যুক্তরাষ্ট্র। এধরনের আরো অনেক রকমের পদ্ধতি আছে যা করে মিয়ানমারের ওপর চাপ সৃষ্টি করা যায়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ