প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কোন দল দেশ উন্নয়নের কাজ করেছে জনগণ তাই দেখবে

ড. অনুপম সেন : কোন দলকে জনগণ ভোট দিবে, এটা জনগণই নির্ধারণ করবে। কোন দলের অর্জন কি, বিভিন্ন সময়ে কোন দল দেশের জন্য কি করেছে, জনগণ তা বিচার করেই ভোট দেবে। নির্বাচনের এখনো বাকি এক বছর। নির্বাচনের এতো সময় বাকি রেখে গণজোয়ার আছে কিনা, তা মূল্যায়ন করা সম্ভব নয়। গণজোয়ার তৈরি হবে নির্বাচনের তিন থেকে চার মাস আগে। নির্বাচনী প্রচার প্রচারণা শুরু করে দিলেই যে, এখন গণজোয়ার আসবে এমন কথা বলা যাবে না।

সব দলই প্রচার প্রচারণা করবে, জনগণ এখন শুধু প্রতক্ষ্য করবে। জনগণ কাকে ভোট দিবে, কোন প্রার্থীকে ভোট দিবে, এখন তা বিচার করতে থাকবে। আমি মনে করি জনগণ এখনো আওয়ামী লীগের পক্ষে। গত দশ বছরে আওয়ামী লীগ যত কাজ করেছে, তা হিসেব করলে, মাথাপিছু আয় কোথায় ছিল আর এখন কোথায় পৌঁছেছে তা দেখলেই হয়। যখন বিএনপি ক্ষমতায় ছিল, মাথাপিছু আয় ছিল ৬শ ডলারের সামান্য কিছু বেশী। আর এখন মাথাপিছু আয় চলে গেছে ১৬’শ ডলারের উপরে।

রিজার্ভ ছিল ৬ বিলিয়নের মতো, আর এখন রিজার্ভ হচ্ছে ৩৩ বিলিয়ন ডলার। তখন বিদ্যুৎ ছিল মাত্র ৩৪’শ মেগাওয়াট, আর এখন বিদ্যুৎ ১৫ হাজার মেগাওয়াট। শিক্ষার ক্ষেত্রে উপবৃত্তি বাড়ানো হয়েছে। গত দশ বছরে বাংলাদেশের অর্থনীতির চেহারাই বদলে গেছে। বাংলাদেশ একটি গরিব দেশ হয়েও নিজ অর্থে পদ্মাসেতু করছে। পোর্ট তৈরি করছে, আরো বিভিন্ন কাজ করছে কোন প্রকার ঋণ না নিয়ে। আগে তো সব কিছু ঋণের উপর নির্ভরশীল ছিল। বিশ্ব ব্যাংকের ঋণের উপর নির্ভরশীল ছিল।

আমেরিকার ঋণের উপর নির্ভরশীল ছিল। এখন তো কারো ঋণের উপর নির্ভরশীল নয় বাংলাদেশ। আমাদের পাশের দেশ ভারত ৭৩/৭৪ সাল পর্যন্তও নানা দেশের ঋণের উপর নির্ভরশীল ছিল। এখন তারা কারো ঋণের উপর নির্ভরশীল নয় বরং তারাই ঋণ দেয়। চীন একসময় খুব কষ্ট করেছে, আজকে তারা আমেরিকার সাথে প্রতিদ্বন্দীতা করছে। বলা হচ্ছে কিছুদিন পরে চীনের জিডিপি আমেরিকার থেকেও বেশি হবে। এক সময় আমরাও এমন হতে পারি। তাই নির্বাচনের এখনো অনেক সময় বাকি। সুতরাং, এখনই কিছু বলা যাবেনা। গণজোয়ার কোন দলের পক্ষে যাবে তা জনগণ বিগত বছরের উন্নয়ন বিচার বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নিবে।

পরিচিতি : উপদেষ্টাম-লির সদস্য, আওয়ামী লীগ
মতামত গ্রহণ : মাহবুবুল ইসলাম
সম্পাদনা : গাজী খায়রুল আলম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ