Skip to main content

জালিয়াত বিনিয়োগকারীর সংখ্যাও কম নয়

ড. আনু মোহাম্মদ : বাংলাদেশের শেয়ারবাজারের সূচক বেশ কিছুদিন যাবৎ নিম্নগামী। এ থেকে মুক্তির জন্য আমাদের দেশের বিভিন্ন সংস্থা কাজ করছে। তারই ধারাবাহিকতায় গতকাল আমাদের শেয়ারবাজারের সূচক ১২৮ পয়েন্ট বেড়েছে। এখন অনেকে ধারণা করছে, চীনের দুটি স্টক এক্সচেঞ্জের সমন্বয়ে গঠিত কনসোর্টিয়াম ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) অংশীদার হওয়ার খবরে বেশ চাঙ্গাভাবে ফিরে এসেছে। তবে এধরণের চাঙ্গাভাব সবসময় থাকবে বলে আমার মনে হয় না। এখন দেশী বিদেশী বিনিয়োগকারীদের একত্র করে যদি ভাল কিছু হয়, তাহলে সেটাকে সাধুবাদ জানাই। কিন্তু আমাদের দেশে বিদেশী বিনিয়োগকারী যাদের বলা হচ্ছে, তারা কি আসলেই বিদেশী? নাকি দেশের কোন কোম্পানীর মাধ্যমে তারা এখানে বিনিয়োগ করছে। তাই আমার মনে হয় আমাদের দেশের সব বিদেশী মানেই বিদেশী নয়। তাই দেশে যেমন জালিয়াত আছে তেমন ভাল আছে। আমাদের দেখতে হবে, যারা বিদেশ থেকে আমাদের দেশে ব্যবসা করতে আসছে তারা কি আমাদের দেশের সকল নিয়ম কানুন মেনে ব্যবসা বানিজ্য করছে ? নাকি আমাদের আইন অমান্য করে ব্যবসা করছে? আমাদের দেশে আন্তর্জাতিক ব্যবসায়ীদের মধ্যে অনেকেই বাজে লোক আছে। আবার অনেক ভাল ব্যবসায়ীও আছে। তাই আমাদের দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নের জন্য নিয়ম নীতি মেনে বিনিয়োগকারী আসলে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন করা সম্ভব। পরিচিতি : অর্থনীতিবিদ মতামত গ্রহণ : শাখাওয়াত উল্লাহ সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ