প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

বর্তমান সরকার গণতন্ত্র চায় না!

শামসুজ্জামান দুদু : বিএনপির চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে যে রায় দেওয়া হল, এ রায়ের প্রতিক্রিয়ায় আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বরিশালের জনসভায় বলেছেন যে, খালেদা জিয়া এখন কোথায়? অথচ তিনি ক্ষমতার জোরে, অনৈতিকভাবে খালেদা জিয়াকে জেলে পাঠালেন।

বর্তমান সরকার প্রধান যেটি চেয়েছিলেন, বিচারের নামে খালেদা জিয়াকে জেলে পাঠাবেন, সেটি তিনি করেছেন। বর্তমান সরকার প্রধানের একমাত্র প্রতিদ্বন্ধিকে অসম্মানজনক ভাবে জেলে পাঠানো ঠিক হয়নি। খালেদা জিয়ার রায়ের কারণে আওয়ামী লীগের সাথে মোকাবিলা থাকবে, এমনকি ধিরে ধিরে সেটি বৃদ্ধি পাবে। গতকাল শুক্রবার শান্তিপূর্ণ করার জন্য সারাদেশে জেলা পর্যায়ে শান্তিপূর্ণ মিছিল করা হয়েছে। এবং আজ সারাদেশে শান্তিপূর্ণ কর্মসুচি করার জন্য মিছিল করা হবে।

বর্তমান সরকার দেশের জনগণের কাছে একটি নড়বড়ে অবস্থায় আছে এবং বিশ্ববাসির কাছে সেটি প্রমাণ করেছেন। খালেদা জিয়া যদি দুর্নীতিবাজ হতো তাহলে তার কোন কোটি কোটি সমর্থক থাকত না। ৮ তারিখে হাজার হাজার সমর্থকরা তাকে ঘিরে কোর্টে নিয়ে গেছেন।

এখন আমরা বলতে চাই, পাকিস্থান আমলে, যখন আমাদের দেশের বাঙ্গালিরা গণতন্ত্র চেয়েছিল পাকিস্তান সরকারের কাছে, তখন সাধারণ জনগণকে নির্যাতিত হতে হয়েছিল পাকিস্তান সরকারের হাতে। এবং তখন শেখ মুজিবকে বিভিন্নভাবে দোষি সাব্যস্থ করা হয়েছে এবং জেলে দেওয়া হয়েছে। সেই সময়ে শেখ মুজিব নির্দোষ হিসাবে প্রমাণিত হয়েছিলেন। কারণ, তিনি সেই সময়ে দেশের মানুষের গণতন্ত্রের জন্য কাজ করেছেন। সুতরাং এথেকে প্রমাণিত হয় যে, আমাদের নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া নির্দোষ হিসাবে প্রমাণিত হবেন।

বেগম খালেদা জিয়া গণতান্ত্রিক দলের নেত্রী হিসাবে দেশের সবার কাছ থেকে সমর্থন পেয়েছেন। বর্তমানে আমরা সারাদেশে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন সৃষ্টি করতে চাই । কিন্তু আমাদের পুলিশ প্রশাসন শান্তিপর্ণ কর্মসুচি পালনে বাধা দেয়। কারণ, তারা বর্তমান সরকারের অধিনে কাজ করছে। এই পুলিশ বাহিনী দ্বারা হাজার হাজার জনসাধারণকে গ্রেফতার করেছে সরকার। এই পুলিশ দ্বারা সাধারণ জনগনকে বিভিন্ন ভাবে হুমকির ভিতরে ফেলে দিচ্ছে। যতদিন পর্যন্ত আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা না হবে, ততদিন গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হবে না। দেশের মানুষেরা গণতন্ত্র ফিরে পাবে না।

পরিচিতি : ভাইস চেয়ারম্যান, বিএনপি
মতামত গ্রহণ : রাশিদুল ইসলাম মাহিন
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত