প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রথম ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসাবে ফিলিস্তিন সফরে যাচ্ছেন মোদি

আশিষ গুপ্ত, নয়াদিল্লি : প্রথম ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শনিবার ফিলিস্তিন সফরে যাচ্ছেন নরেন্দ্র মোদি। দীর্ঘকাল ধরে বিবাদমান ইসরাইলের সঙ্গে ফিলিস্তিনের সঙ্গে সম্পর্কের ভারসাম্য রক্ষা করতেই মোদির এই সফর বলে জানাগেছে।

দিল্লির পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় সাউথ ব্লক সূত্রে জানাগেছে, শুক্রবার থেকে ১২ ফেব্রুয়ারি ফিলিস্তিন, সংযুক্ত আরব আমিরশাহি এবং ওমান সফর করবেন মোদি। আগামীকাল ১০ ফেব্রুয়ারি ফিলিস্তিনের রামাল্লায় যাবেন তিনি। গত বছরই ইসরায়েল সফরে গিয়েছিলেন মোদি। আর, গত সপ্তাহেই ভারতে এসেছিলেন ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানইয়াহু।

গত বছরই প্রথম ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী হিসেবে ইসরায়েল সফরে গিয়েছিলেন মোদি। তার পর এই প্রথম কোনও ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী পা রাখতে চলেছেন ফিলিস্তিনে। স্বাভাবিক ভাবেই এই সফর দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের ক্ষেত্রে খুবই তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করছে কূটনৈতিক মহল।

গত বছর ইসরায়েল সফরে গেলেও ফিলিস্তিনের পথ মাড়াননি মোদি। সে সময় প্রশ্ন উঠেছিল, ইসরায়েলের সঙ্গে নতুন সম্পর্কের রসায়ন গড়তেই কি ফিলিস্তিনকে এড়িয়ে যান ভারতের প্রধানমন্ত্রী? ফিলিস্তিন সেন্টার পলিসি অ্যান্ড সার্ভে রিসার্চের ডিরেক্টর খালিল শিকাকি প্রশ্ন তুলেছিলেন, ১৯৪৮ সালে দেশভাগের পর থেকে ফিলিস্তিনকে বন্ধু হিসেবে আলিঙ্গন করে ভারত।

‘৭৪-এ ফিলিস্তিনকে জোট নিরপেক্ষ আন্দোলনের অংশীদার করতেও সাহায্য করে ভারত। এর মধ্যে দিয়ে কার্যত আলাদা রাষ্ট্র হিসাবে স্বীকৃতিও দেওয়া হয় ফিলিস্তিনকে। তা হলে এখন এত বৈষম্য কেন? মন্তব্য খালিলের। তাঁর কথায়, ‘প্রতিরক্ষা এবং বাণিজ্যের স্বার্থে ভারতের প্রধানমন্ত্রী মনে হয় পশ্চিমের সঙ্গেই সম্পর্ক স্থাপনে বেশি উৎসাহী। এখন তো মনে হচ্ছে ভারতের কাছ থেকে সাহায্য পাওয়ার আর কোনও আশাই নেই ফিলিস্তিনের।’

জেরুসালেম প্রশ্নে অবশ্য জাতিসংঘের প্রস্তাবে ইসরায়েলের বিপক্ষেই ভোট দিয়েছে ভারত। ফিলিস্তিনের সঙ্গে জেরুসালেম নিয়ে লড়াইয়ে ভারত যে ইসরায়েলের বিপক্ষে তা স্পষ্ট করার পরেও নেতানইয়াহুর সফরে তার কোনও প্রভাব পড়েনি। এ বার ফিলিস্তিন সফরে গিয়ে ভারতের অবস্থান আরও স্পষ্ট করতে চলেছেন নরেন্দ্র মোদি।

ফিলিস্তিন ছাড়াও দুবাইয়ে ‘সিক্সথ ওয়ার্ল্ড গর্ভনমেন্ট সামিট’-এ বিশেষ অতিথি হিসেবে আমন্ত্রিত মোদি। ভারতের সরকারি সূত্রে খবর, দু’দেশের মধ্যে সম্পর্ক আরও জোরদার করতে প্রতিরক্ষা এবং বাণিজ্য সংক্রান্ত নানা বিষয়ে আলোচনা হবে। আমিরশাহি এবং ওমানে অনাবাসী ভারতীয়দের সঙ্গেও কথা বলবেন মোদি।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত