প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রশ্নপত্র ছাপানোর সময় উচ্চ পদের কর্মকর্তাদের থাকা উচিৎ

ড. অজয় রায় : প্রশ্ন যখন ছাপাখানার মেশিনে ছাপা হয় সেই মেশিনের সাথে সংযুক্ত ব্যক্তিরা দলবদ্ধ হয়ে বিভিন্ন পৃষ্ঠার কাজ করতে পারে। প্রশ্নপত্র ছাপানোর সময় উচ্চ পদের কর্মকর্তাদের যুক্ত হওয়া উচিৎ। তারা থাকলে বোঝবে সেখান থেকে প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে কি না। তারা যদি নিশ্চিত হন যে প্রশ্নপত্র বের হয় নাই, তখন ওটা সিলগালা করে রাখতে পারে। তারপর ঢাকার বহিরে যখন পাঠান ট্রেজারি অফিসে অত্যন্ত সুরক্ষিত ভাবে প্রশ্নপত্র রাখা হয়। এখানে সব ধরনের সরকারি ও বেসরকারি জিনিসপত্র রাখা হয়। ট্রেজারিতে যখন রাখা হয়, আমরা সাধারন মানুষ মনে করি এসব জিনিস সুরক্ষিত ভাবে থাকবে। যেদিন পরীক্ষা হবে যথাযথ সময় বিভিন্ন জেলার ট্রেজারি থেকে এই প্রশ্নপত্র যেন পৌঁছে, সে বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে। এ ব্যাপারে পুলিশ, সরকারি গার্ড, র‌্যাব ইত্যাদি আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সাহায্য নিতে পারে। দরকার হলে সেনাবাহিনীর সাহায্য নিতে পারে। আমি মনে করি না সোস্যাল মিডিয়া বন্ধে করে প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো সম্ভব। সোস্যাল মিডিয়া একটা মাত্র সোর্স তাও সেটা ইনডায়রেক্ট সোর্স। তারা ওই সব বড় বড় কর্মকর্তাদের সাথে পরামর্শ করে এই সব কাজ করবে না। কোচিং সেন্টারও নিজেস্ব কোন সোর্স নেই। এসব প্রক্রিয়ার সাথে কাজ করার মতো তারা লোক পাবে না। তাই আমি মনে করি কোচিং সেন্টারও বন্ধ করে প্রশ্নপত্র ফাঁস ঠেকানো সম্ভব।

পরিচিতি : শিক্ষাবিদ
মতামত গ্রহণ : কায়েস চৌধুরী
সম্পাদনা : গাজী খায়রুল আলম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত