প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ইন্দোনেশিয়ার পুলিশ নারী বেশধারী হিজড়াদের ন্যাড়া করে দিল

সাঈদা মুনীর: ইন্দোনেশিয়ার আচেহ প্রদেশে নারীর রূপ ধারণ করা ১২ হিজড়াকে আটক করেছে পুলিশ। পাঁচটি সেলুনে নারীবেশে সেবা দিচ্ছিলেন তারা। পুলিশ ওই প্রদেশে হিজড়া, সমকামী, উভকামী বিরুদ্ধে অভিযান চালানোর সময় তাদের আটক করে, তাদের মাথা ন্যাড়া করে দেয়। পরিয়ে দেয় পুরুষের পোশাক। এ খবর দিয়েছে অনলাইন সিএনএন।

এলজিবিটি সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে পুলিশের এই অভিযানের ফলে মানবাধিকার সংস্থাসমূহ উদ্বেগ জানিয়েছে। ওই প্রদেশের পুলিশ প্রধান আহমাদ উন্তুং সুরিয়ান্তা বলেছেন, আমার লোকেরা ওই হিজড়াদের আটক করে তাদের পুরুষ হবার প্রশিক্ষণের আওতায় মাথা ন্যাড়া করে পুরুষের পোশাক পরিয়ে দিয়েছে। এছাড়াও, অফিসাররা তাদেরকে খানিকটা সময় উচ্চৈঃস্বরে চিৎকারের পাশাপাশি দৌড় দেয়ায়। যাতে তাদের পুরুষালি কন্ঠ বের হয়ে আসে। ইন্দোনেশিয়ার নতুন প্রজন্মকে এলজিবিটি সমাজের বিকৃত প্রভাবের হাত থেকে রক্ষা করার উদ্দেশ্যেই এই অভিযান। আটক করা ওইসব হিজড়াকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা দেবার জন্যে থানায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

সিএনএনকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে সুরিয়ান্তা বলেন, কিছু সেলুনে স্কুলগামী কিশোরদের নারী বেশধারী হিজড়ারা ‘সেবা’ দিচ্ছে এবং এলাকাতে মাদকের ব্যবহার বাড়ছে- এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে পুলিশ এই অভিযান চালিয়েছে। এটি কোন এলজিবিটি বিরোধী অভিযান নয় বলে তিনি জানান। উল্লেখ্য, আচেহ প্রদেশ ইন্দোনেশিয়ার একমাত্র প্রদেশ যেখানে ইসলামী শরিয়াহ আইন বহাল। ২০১৭ সালের মে মাসে সমকামে লিপ্ত হবার অপরাধে দুজন যুবককে ৮০ ঘা করে বেত্রাঘাত করা হয়। প্রতিবেশীরা তাদের এপার্টমেন্টে হানা দিয়ে হাতেনাতে ধরে ফেলে। এ প্রসঙ্গে ইন্দোনেশিয়ার সক্রিয়তাবাদী মানবাধিকার কর্মী তুংগাল পাওয়েস্ত্রী সিএনএন’র কাছে শঙ্কা প্রকাশ করে বলেন, রোববারের অভিযানে পুলিশ হিজড়াদের মানবাধিকার লঙ্ঘন করেছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত