প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খোকনকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে, অভিযোগ রিজভীর

নিজস্ব প্রতিবেদক :  রমনা এলাকা থেকে  আইনশৃঙ্খলাবাহিনীর সদস্যরা বিএনপির গণশিক্ষা বিষয়ক সহ সম্পাদক আনিসুজ্জামান খোকনকে তুলে নিয়ে যায়। গুলশান কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে বিএনপির সিনিয়র যুগ্ন মহাসচির রুহুল কবির রিজভী  এমন অভিযোগ করেন।

সোমবার (২৯ জানুয়ারি) দিবাগত রাত ১২টায় বিএনপি চেয়ারপারসনের গুলশানের রাজনৈতিক কার্যালয়ে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি। তবে, এ অভিযোগ অস্বীকার করেছে র‌্যাব-৩।

সংবাদ সম্মেলনে রিজভী বলেন, ‘স্থানীয় নেতাকর্মীরা রাজধানীর রমনা হোটেলে আনিসুজ্জামান খোকনের সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলেন। এরই মধ্যে র‌্যাব-৩ কয়েকটি গাড়ি দিয়ে রমনা হোটেল ঘিরে রাখে। এরপর বিভিন্ন রুমে হানা দিয়ে র‌্যাব খোকনকে নামিয়ে নিয়ে আসে। পরে একটি হায়েস মাইক্রোবাসে করে তাকে তুলে নিয়ে যায়। এ ধরনের ঘটনা গোটা জাতির কাছে শেখ হাসিনার শাসনামলের দৃষ্টান্ত হিসেবে থেকে যাবে।’

রিজভী আরও বলেন, ‘উনি (প্রধানমন্ত্রী) নাকি দেশে উন্নয়ন করেছেন। উনি নাকি শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রেখেছেন। উনি গোটা দেশকে লাশের নগরীতে পরিণত করেছেন। আমি আনিসুজ্জামান খোকনকে র‌্যাব কর্তৃক আটকের ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং তাকে পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি জানাচ্ছি।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘কিছুদিন আগেও অমানবিকভাবে তুলে নিয়ে আনিসুজ্জামান খোকনকে গুম করা হয়েছিল। গুমের নামে তার ওপর কত নির্যাতন করা হয়েছিল, তা ভাষায় প্রকাশ করা মুশকিল। বাকস্বাধীনতা লুণ্ঠনের এই দেশে, মৌলিক মানবাধিকার চূড়ান্তভাবে স্তব্ধ করার এই দেশে স্বাভাবিক জীবনযাপন করার অধিকারও এখন নেই।’

দেশের বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের গুম, অপহরণ ও মৃত্যুভয় তাড়া করে ফিরছে বলেও মন্তব্য করেন রিজভী।

এদিকে, র‌্যাব-৩-এর অধিনায়ক লে. কর্নেল এমরানুল হাসান আনিসুজ্জামান খোকন নামে কাউকে আটকের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। এ বিষয়ে জানতে তার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে রাতে তিনি বলেন, ‘আমরা কাউকে আটক করিনি। অন্য কোনও সংস্থা বা ইউনিট আটক করেছে কিনা, আমার জানা নেই।’

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত