প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ড্যানিয়েলস কেলেঙ্কারিতে দূরত্ব বাড়ছে মেলানিয়ার সঙ্গে, নতুন বিতর্কে ট্রাম্প! তোলপাড়

ডেস্ক রিপোর্ট :  গত সপ্তাহ থেকে সবকিছুতেই অদ্ভুত রকমভাবে অনুপস্থিত রয়েছেন মার্কিন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া ট্রাম্প। ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে যোগ দিতে স্বামী ডোনাল্ড ট্রাম্প সুইজারল্যান্ডের দাভোসে যাওয়ার পর থেকেই নিজেকে অনেকটা আড়ালে রেখেছেন ফার্স্ট লেডি মেলানিয়া।
যাইহোক, পর্ন তারকা স্ট্রর্মি ড্যানিয়েলসের সঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্পের এক দশকের পুরনো সম্পর্ক নিয়ে সাম্প্রতিক গুঞ্জনের তুলনায় তার এই অনুপস্থিতি যদিও কিছুটা কম কৌতূহলের।
স্ট্রর্মি ড্যানিয়েলস নামে অভিনয় করা এই পর্ন তারকার আসল নাম স্টেফানি ক্লিফোর্ড। ২০০৬ সালে স্টেফানি ক্লিফোর্ডের সঙ্গে যৌন সম্পর্ক স্থাপন করেছিলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প। কিন্তু ওই পর্ন তারকা যাতে বিষয়টি নিয়ে মুখ না খোলেন, সেই লক্ষ্যে গত বছর মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের মাসখানেক আগে ব্যক্তিগত আইনজীবী মাইকেল কোহেনের মাধ্যমে তাকে ১ লাখ ৩০ হাজার ডলার দিয়েছিলেন ট্রাম্প।
শুক্রবার ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে এ সম্পর্ক প্রতিবেদন প্রকাশ হওয়ার পর মেলানিয়া হঠাৎ তার দাভোস সফর বাতিল করে দেন। এরপর একাকি ফ্লোরিডার ‘ওয়েস্ট পাম’ বিচের উদ্দেশ্যে বিমান ওঠেন। এর আগে বৃহস্পতিবার অঘোষিত এক সফরে তিনি ওয়াশিংটন ডিসির হোলোকাস্ট মেমোরিয়াল যাদুঘরে যান।
যাইহোক, শুক্রবার মেলানিয়া ট্রাম্পের একজন মুখপাত্র এটিকে মিডিয়ার ‘মিথ্যা প্রতিবেদন’ বলে দাবি করেন।
মেলানিয়ার মুখপাত্র স্টেফিনি গ্রেশাম এক টুইটে বলেন, ‘ফার্স্ট লেডি হিসেবে মেলানিয়া তার পরিবার ও তার দায়িত্ব নিয়ে দৃষ্টিপাত করেন। জালিয়াতির মাধ্যমে প্রকাশিত অবাস্তব ঘটনা নিয়ে তার কোনো আগ্রহ নেই।’
ক্লিফোর্ডের সঙ্গে ট্রাম্পের এই সম্পর্ক এবং পরবর্তীতে অপ্রকাশিত পেমেন্টের বিষয়ে ওয়াল স্ট্রিট জার্নালে প্রতিবেদন প্রকাশিত হওয়ার পর বেশ কয়েকটি প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে যে, মেলানিয়া ট্রাম্প তার স্বামীর কাছ থেকে দূরত্ব বজায় রেখে চলেছেন।
ডেইলি মেইল জানিয়েছে এই ঘটনা প্রকাশ হওয়ার পর থেকেই ফার্স্ট লেডি ওয়াশিংটন ডিসির একটি হোটেলে অবস্থান করছিলেন।
অনলাইন ম্যাগাজিন স্লেট গ্রুপের প্রধান সম্পাদক জ্যাকব ওয়েইসবার্গ বলেন, ২০১৬ সালের আগস্ট ও অক্টোবরে সাক্ষাৎকারে ক্লিফোর্ড বলেন, ২০০৬ সালে তার সঙ্গে ট্রাম্পের পরিচয় এবং সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারের সময় ট্রাম্পের আইনজীবী তাকে সম্পর্কের বিষয়টি নিয়ে চুপ থাকতে বলেন। এ জন্য ট্রাম্পের আইনজীবীর মাধ্যমে তাঁকে অর্থ দেওয়া হয়।
স্টেফানি ক্লিফোর্ড আরো দাবি করেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একটি নামি গলফ টুর্নামেন্টে তার সঙ্গে ট্রাম্পের পরিচয় হয়েছিল। ২০০৬ সালে তার সঙ্গে ডোনাল্ড ট্রাম্পের শারীরিক সম্পর্ক হয়। সেখানেই ওই কাণ্ড করেন ট্রাম্প।
আরটিএনএন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত