প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘সন্দেহ নেই গণতন্ত্রের ক্ষেত্রটা এখন খুবই সংকুচিত’

আশিক রহমান : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায়কে কেন্দ্র করে গ্রেপ্তার আতঙ্ক, সাধারণ মানুষের উদ্বেগ-উৎকন্ঠার জায়গাটা কি এসব জিজ্ঞাসার কোনো উত্তর এখন আমি দিব না, অগ্রিম কথাবার্তাও বলব না। রায়টা কি হয় দেখা যাক। তবে এতটুকু বলা যায় যে, এমনিতেই তো গণতন্ত্রের ক্ষেত্রটা এখন খুব সংকুচিত, এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। এই প্রতিবেদকের সঙ্গে আলাপকালে এমন মন্তব্য করেন সিপিবির সভাপতিম-লীর সদস্য ও রাজনৈতিক বিশ্লেষক হায়দার আকবর খান রনো।

তিনি বলেন, গণতন্ত্র বলতে কেবল নির্বাচন বোঝায় না। শ্রম আইন, নিম্ন-মজুরি, মানুষের জীবনের চাহিদা পূরণ গণতন্ত্রের আধুনিক সংজ্ঞার মধ্যে পড়ে। যতদিন লুটেরা ধনিকশ্রেণি রাষ্ট্র ক্ষমতায় থাকবে ততদিন ন্যূনতম গণতন্ত্রও আশা করা যায় না। গণতন্ত্রকে যদি খুবই সংকীর্ণ অর্থে ধরি, এমনকি বুর্জোয়া গণতন্ত্রের ন্যূনতম উপাদানের সন্ধানও যদি করি তাহলেও দেখব গণতন্ত্র অনুপস্থিত।

তিনি আরও বলেন, গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠিত করতে হলে দুই বড় দলের বাইরে বাম, উদারপন্থি দল ও ব্যক্তির সমাবেশ ঘটাতে হবে। জনগণই সংগ্রামের মাধ্যমে গণতন্ত্রকে অর্জন করবে। নতুন ধারার রাজনীতির উদ্বোধন ঘটাবে। আর মুক্তিযুদ্ধের চেতনা থেকে বিচ্যুতি হওয়ার পেছনে সবাই দায়ী, শেখ হাসিনাও দায়ী। এই দায়ের জায়গাটা আসলে কমবেশির বিষয় নয়। এখানে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাটা কী? একটা বিমূর্ত গণতন্ত্র। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার কথা মুখে খুব বলেছি। এর পক্ষে থাকলে চেতনায় বিশ্বাসী হয়ে গেলাম আর বিপক্ষে থাকলেই রাজাকার এটা তো হয় না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বলতে যদি গণতন্ত্র বোঝায়, সেই গণতন্ত্র এখন আর নেই।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত