প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

সিলেটে ৩৮ প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিস্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী

সিলেট প্রতিনিধি: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সিলেট সফর করবেন ৩০ জানুয়ারি। তার সফরকে কেন্দ্র করে শুধু নগরীতেই উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে এমন নয়; প্রধানমন্ত্রীর আগমন ঘিরে সিলেটের গ্রামে গ্রামেও চলছে উৎসবের আমেজ।

দফায় দফায় চলছে বৈঠক, প্রচার মিছিল, সভা আর সমাবেশ। এছাড়া বর্ণিল করে সাজানো হয়েছে সিলেট নগরীকে। শেষ সময়ের ব্যস্ততায় কাটছে প্রশাসন ও সরকার দলীয় নেতাদের। প্রধানমন্ত্রীর সফরকালীন সময়ে নিরাপত্তাসহ সার্বিক বিষয়ে গণবিজ্ঞপ্তি জারি করেছে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ।

প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানিয়ে সিলেট নগরী ছাড়াও প্রতিটি উপজেলার প্রধান মোড়ে মোড়ে বঙ্গবন্ধুর তনয়া শেখ হাসিনাকে লাগানো হয়েছে ব্যানার-পোস্টার, বিলবোর্ড আর তোরণ। তৃণমূল কর্মী থেকে শুরু করে শীর্ষ নেতারাও নিজ নিজ অবস্থান থেকে প্রচারণা চালাচ্ছেন। আর সিলেট জেলা আওয়ামী লীগ প্রত্যেক উপজেলায় সভা করে নেতাকর্মীদের উজ্জীবিত করেছে।

প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশে সিলেট জেলার ১৩ উপজেলা থেকে বিপুল সংখ্যক নেতাকর্মীর আগমন ঘটবে বলে জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের নেতারা।

সিলেট জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট লুৎফুর রহমান জানান, সিলেটের ১৩টি উপজেলায় আমরা বৈঠক করেছি। প্রত্যেক উপজেলায় ৯টি করে ইউনিয়ন রয়েছে। আবার প্রত্যেক ইউনিয়নে ৯টি করে ওয়ার্ড রয়েছে। সে হিসেবে প্রত্যেক ওয়ার্ড থেকে নিজ উদ্যোগে গাড়ি নিয়ে সমাবেশে যোগ দিতে নেতাকর্মীরা উৎসাহ নিয়ে হাজির হবেন।

তিনি বলেন, ১৩ উপজেলা থেকে ২ শতাধিক গাড়ি করে সমাবেশে নেতাকর্মীরা উপস্থিত হবেন। এছাড়া সিলেট জেলা ছাড়াও হবিগঞ্জ, মৌলভীবাজার ও সুনামগঞ্জ জেলা থেকেও গাড়ি করে নেতাকর্মীরা আলীয়া মাদ্রাসার সমাবেশে যোগ দেবেন।’

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (ট্রাফিক) নিকোলিন চাকমা বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রীর সমাবেশে যোগ দিতে আসা গাড়িরবহরকে দক্ষিণ সুরমার চন্ডিপুল, কেন্দ্রীয় বাসটার্মিনাল, কুমারগাঁও বাস টার্মিনাল, টিলাগড় এমসি কলেজ ও বালুচরে বাস থামিয়ে দেওয়া হবে। তিনি বলেন, ওইদিন কোনো অবস্থাতেই শহরে যানজট হতে দেয়া যাবে না।

সিলেটে সফরকালে প্রধানমন্ত্রী ৩৮টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। এর মধ্যে ২০টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ১৮ টি প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। এছাড়া আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় বক্তব্য রাখবেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রীর জনসভা ঘিরে ব্যাপক প্রস্তুতি নিয়েছে সিলেট জেলা ও মহানগর আওয়ামী লীগ। জনসভায় প্রায় দুই লাখ মানুষের উপস্থিতি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে নেতাকর্মীরা দিনরাত মাঠ পর্যায়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

এমনকি প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরাও প্রধানমন্ত্রীর এ সফর সফরকে সফল ও নির্বিঘ্ন করতে দফায় দফায় বৈঠক করছেন। প্রধানমন্ত্রীর আগমনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে পুরো নগরী ততোই সরগরম হচ্ছে।

সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মো. শহিদুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর সিলেট সফরকে নির্বিঘ্ন করতে সব ধরণের প্রস্তুতি গ্রহণ করেছে জেলা প্রশাসন। প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এসএসএফের অগ্রবর্তী দল প্রধানমন্ত্রী যে সকল স্থানে যাবেন সে সকল স্থান পরিদর্শণ করেছে। এছাড়া জেলা প্রশাসনও সার্কিট হাউসসহ অন্যান্য স্থান পরিদর্শণ করেছে।

প্রধানমন্ত্রীর সফরসূচি সূত্রে জানা যায়, প্রধানমন্ত্রীর এবারের সিলেটে আগমনের সফরসূচিতে হজরত শাহজালাল (র.), হজরত শাহপরান (র.) ও হজরত গাজী বুরহান উদ্দিন (র.) এর মাজার জিয়ারত করবেন। সফরসূচি অনুযায়ী সকাল ১১টা থেকে দুপুর সোয়া ১২টা পর্যন্ত প্রধানমন্ত্রীর এই ৩ মাজার জিয়ারত করবেন। দুপুর সাড়ে ১২টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত সিলেট সার্কিট হাউজে নামাজ ও মধ্যাহ্ন বিরতি শেষে দুপুর ২টা ৪০ মিনিটে সিলেট সরকারি আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে জনসভাস্থল থেকে ৩৮টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন। বিকেল ৩টায় আলিয়া মাঠে আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় যোগ দেবেন।

প্রধানমন্ত্রীর এবারের সফরসূচিতে উদ্বোধনী তালিকায় রয়েছে- হজরত গাজী বোরহান উদ্দিন (রহ.) এর মাজার উন্নয়ন, মহিলা এবাদতখানা নির্মাণ, মাজারের সৌন্দর্য বর্ধন এবং মাজারের যাতায়াতের প্রধান রাস্তা ২ কিলোমিটার প্রশস্তকরণ ও উন্নয়ন, সিলেট সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের ৬ তলা বিশিষ্ট নতুন একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবন, পিরোজপুরে সার পরীক্ষাগার ও গবেষণাগার ভবন, মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের জেলা অফিস, সিলেট বিভাগীয় ও জেলা এনএসআই কার্যালয় ভবন, সিলেট মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, জকিগঞ্জ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমপ্লেক্স ভবন, সিলেট সিটি কর্পোরেশনের ভবন, নগরীর বাবুছড়ার আরসিসি ইউ টাইপ ড্রেন নির্মাণ কাজ, জালালাবাদ রাস্তা সম্প্রসারণ ও উন্নয়ন কাজ, সিলেট-সুনামগঞ্জ বাইপাস সড়ক উন্নয়ন, মৌলভীবাজার- রাজনগর- ফেঞ্চুগঞ্জ-লেট সড়ক, রশিদপুর-বিশ্বনাথ-লামাকাজী সড়কের কাজ, সিলেট- গোলাপগঞ্জ- চারখাই- জকিগঞ্জ সড়ক, দরবস্ত- কানাইঘাট- শাহবাগ সড়কের মজবুতিকরণসহ ওভারলে এর কাজ, ঢাকা

(কাঁচপুর)-ভৈরব-জগদীশপুর-শায়েস্তাগঞ্জ-সিলেট-তামাবিল-জাফলং সড়কের (সিলেট-শেরপুর অংশ) মজবুতিকরণসহ ওভারলে এর কাজ, শেরপুর টোল প্লাজার উন্নয়ন কাজ, জকিগঞ্জ উপজেলার সুলতানপুর ইউনিয়ন পরিষদ কমপ্লেক্স, কানাইঘাট সড়ক ও তিনতলা বিশিষ্ট প্রাইমারি হেলথ কেয়ার সেন্টার ভবন।

ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন তালিকায় রয়েছে- হজরত শাহজালাল (র.) মহিলা ইবাদতখানা ও অন্যান্য উন্নয়ন কার্যক্রম, শাহজালাল বিজ্ঞান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে বেগম ফজিলাতুন্নেসা হল নির্মাণ, গোয়াইনঘাট উপজেলা পরিষদ ভবন ও হলরুম নির্মাণ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ছাত্র হোস্টেল ভবন নির্মাণ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজের ছাত্রী হোস্টেল ভবন নির্মাণ, সিলেটে ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেলা হাসপাতাল নির্মাণ, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেলের অভ্যন্তরে নার্সিং হোস্টেল ভবন নির্মাণ, সিলেট পুলিশ লাইনে এসএমপির ব্যারাক নির্মাণ, সিলেট পুলিশ লাইনে অস্ত্রাগার নির্মাণ, এসএমপির কোতোয়ালী মডেল থানার কম্পাউন্ডে ডরমেটোরি ভবন নির্মাণ, তামাবিল ইমিগ্রেশন চেকপোস্ট ভবন নির্মাণ, সিলেটের লালাবাজারে রেঞ্জ রিজার্ভ পুলিশ লাইনস নির্মাণ, দৃষ্টি প্রতিবন্ধী শিশুদের জন্য হোস্টেল নির্মাণ ও সম্প্রসারণ, বিশ্বনাথ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সকে ৩১ শয্যা থেকে ৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ, বিভাগীয় পরিচালক (পরিবার পরিকল্পনা) ও জেলা পরিবার পরিকল্পনা সিলেটের অফিস ভবন নির্মাণ, সিলেট-গোলাপগঞ্জ-চারখাই-জকিগঞ্জ মহাসড়কের ৬৫ কিলোমিটার উন্নয়ন, গোলাপগঞ্জ- ঢাকা দক্ষিণ- ভাদেশ্বর সড়ক ও চারখাই-শেওলা-বিয়ানীবাজার-বাড়ইগ্রাম সড়কের ৯.৬০ কিলোমিটার উন্নয়ন, সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল হাসপাতাল ভবনের ৪র্থ তলা হতে ১০ তলা উর্ধ্বমুখী সম্প্রসারণ।

মহানগর মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ কমিশনার (গণমাধ্যম) মুহাম্মদ আব্দুল ওয়াহাব বলেন, ‘রাষ্ট্রীয় প্রধানের আগমন নির্বিঘ্নে করতে পুলিশ বাহিনী সর্বোচ্চ কাজ করছে। প্রধানমন্ত্রী যেসব স্থানে যাবেন ওই স্থানে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দেওয়া হবে। তিনি বলেন, ইতোমধ্যে মহানগর পুলিশের বিভিন্ন শাখার কর্মকর্তারাও মাঠে কাজ করছেন।’

এদিকে প্রধানমন্ত্রীর সিলেট আগমন উপলক্ষে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে বলে এক গণবিজ্ঞপ্তিতে জানিয়েছে এসএমপি। বিদেশগামী দেশী বিদেশী যাত্রীদের বিমানবন্দরে চলাচলের সুবিধার্থে পর্যাপ্ত সময় হাতে নিয়ে সিলেট ওসমানী বিমানবন্দরে যাওয়া-আসা করার জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ জানানো হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর সিলেট সফরকালীন সময়ে

বিভিন্ন স্থান পরিদর্শন ও জনসভা নির্বিঘ্নে সম্পন্নের জন্য প্রয়োজনানুযায়ী সিলেট নগরীর বিভিন্ন প্রবেশমুখে রাস্তাঘাট ও যানবাহন চলাচল নিয়ন্ত্রণ/প্রয়োজনে সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ করা হবে। এছাড়া জনসাধারণকে সন্দেহজনক ব্যাগ, থলে, পোটলা, সুটকেস, টিফিন ক্যারিয়ার বা এ জাতীয় কোন বস্তু পরিবহন না করতে অনুরোধ জানানো হয় গণবিজ্ঞপ্তিতে।

এছাড়া কোন সন্দেহজনক ব্যক্তির আবাসিক এলাকা, মার্কেট বা আবাসিক হোটেলে অবস্থান বা চলাচল পরিলক্ষিত হলে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বা জনগণ সাথে সাথে সিলেট মেট্টোপলিটন পুলিশকে অবগত করার জন্য অনুরোধ জানানো হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত