প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রথম আলোর সাথে টম এন্ড জেরী খেলছেন

ডেস্ক রিপোর্ট : প্রথম আলো নিয়ে আবারো মুখ খুললেন জনপ্রিয় সঙ্গীত শিল্পী আসিফ আকবর। নিজের ফেসবুক পেজে প্রথম আলোকে বৃদ্ধ সিংহের সাথে তুলনা করে তিনি লিখেছেন ‘বৃদ্ধ সিংহের মত নিজের গর্জনে নিজেই উজ্জীবিত হতে হতে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে প্রথম আলো’।

আসিফ আকবর গতকাল তার ভেরিভাইড ফেসবুক পেজে প্রথম আলো পত্রিকা নিয়ে একটি বিশাল স্ট্যাটাস পোস্ট করেন। পাঠকের জন্য সেই স্ট্যাটাসটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

তিনি লেখেন, ‘দৈনিক প্রথম আলোর জন্য করুনা হয়, একটা সুস্থ্য পত্রিকা কিভাবে প্রতিবন্ধী হয়ে গেলো!!! অন্যায় নিউজ ছাপাবে, আর প্রতিবাদ করলেই ব্লক, এরা নাকি গনতান্ত্রিক মানসিকতার হা হা হা। আসিফ আকবর প্রথম আলোর হাত ধরে আসেনি বরং অকৃতজ্ঞ প্রথম আলোকে হৃষ্টপুষ্ট করতে এই আসিফের দৌড়ঝাঁপ ছিলো ব্যাপক। এখন প্রথম আলোতে আর কোন আনন্দ নেই, আগের মত উচ্ছ্বাস নেই উৎসব নেই, এটি এখন দৈত্যের বাগান। বৃদ্ধ সিংহের মত নিজের গর্জনে নিজেই উজ্জীবিত হতে হতে জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে। ইত্তেফাক ছাড়া আর কোন পত্রিকা এতো হায়াৎ পায়নি। আজকের কাগজ ভোরের কাগজ হয়ে আজকের প্রথম আলো কোথায় যাচ্ছে !!

তারা আমার নিউজ ছাপবেনা ভালো কথা ,আমার অতো খায়েশও নেই, কখনো বলিনি আমার নিউজ করেন। প্রথম আলোর বিনোদন মানেই ভারতীয় তারকাদের টিস্যূ পেপার ব্যবহারের খবর অথবা ভূপাতিতদের সামনে এনে পাবলিক ফিগার বানানোর ব্যর্থ চেষ্টা । আমি বারবার বলি আমাকে এ্যাওয়ার্ড এ নমিনেশন না দিতে। ২০০৮ সাল থেকে আমি এ্যাওয়ার্ড প্রোগ্রামে যাইওনা, তবু কান্নাকাটি করে নিয়ে যায়। আমার ফ্যানরাও যথেষ্ট বেয়াড়া- কথা শোনেনা, সারাক্ষন শুধু আসিফ আসিফ করে আর ভোট দেয়। বেচারীরা আবার আমার নাম ছবি ছাপাতে বাধ্য হয়। এই অসহায়ত্ব আর ভালো লাগে না। মেরিল প্রথম আলো এ্যাওয়ার্ড এখন এ্যাডওয়ার্ড প্রোগ্রাম হয়ে গেছে। আমি চাইলেই ভোটের গতি বদলে দিতে পারি ,যেমন কর্নিয়াকে আমরা পছন্দ করেছি সেরা গায়িকা ক্যাটাগরীতে, খেলা হবে। অন্য সবার কাছে ক্ষমা চাই । প্রথম আলোর সাথে একটু টম এন্ড জেরী খেলা খেলি, আমরা আমরাই তো।

খবর পেলাম প্রথম আলোতে ব্যাপক রদবদল আসন্ন। ক্রমশ ক্ষয়িষ্ণু এই পত্রিকাটি কতদিন টিকে থাকবে জানিনা । তবে সুনীল বাবু’র লেখা ‘প্রথম আলো’ উপন্যাসটা পড়বো সবসময়, ওটা টিকে থাকবে। প্রথম আলোর জন্য মায়া হয়, দোয়া করি এই ভয়াবহ রুগ্নতা থেকে যেন সুস্থ্য হয়ে ওঠে। ‘ বিদ্যায় গজ গজ ধনুর্ধর’ প্রথম আলো’র জন্য সবাই দোয়া করবেন। সিংহ বৃদ্ধ হলেও সিংহই থাকে ,তবে ব্যতিক্রম কুমিল্লা চিড়িয়াখানায় অবহেলায় মরে যাওয়া সিংহটি ,ওটার নাম ছিলো যুবরাজ,আমার শহরে আরেক যুবরাজ !!! যাও বাচ্চা সো রহো ………যে পত্রিকা আমার জেনুইন খবর ছাপেনা সেটা কোন পত্রিকাই না, দিলাম প্রথম আলোর জন্য একটা সিলভার বাটন পুইং ফুঁ…………………………

 

দৈনিক প্রথম আলোর জন্য করুনা হয়, একটা সুস্থ্য পত্রিকা কিভাবে প্রতিবন্ধী হয়ে গেলো!!! অন্যায় নিউজ ছাপাবে, আর প্রতিবাদ করলেই…

Gepostet von Asif Akbar am Freitag, 26. Januar 2018

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত