প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

রায় ঘোষণা অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন বানচালের ষড়যন্ত্র : বিএনপি

মাঈন উদ্দিন আরিফ : জিয়া আরফানেজ দুর্নীতির মামলায় দ্রুত রায় ঘোষণা আগামী নির্বাচনে বিএনপিকে বাইরে রাখার ষড়যন্ত্রের অংশ বলে মনে করছে দলটি। শনিবার রাতে বিএনপির জাতীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক থেকে বের হয়ে দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সাংবাদিকদের একথা বলেন।

তিনি বলেন, এখন জনগণের কাছে দিবালোকের মত স্পষ্ট, জালিয়াতি করে বিচারের নামে প্রহসন এবং বিরোধীপক্ষকে দমনের জন্য সরকার আদালতকে ব্যবহার করছে। নির্বাচন বানচালে সরকারের এই নোংরা প্রচেষ্টা দেশের ইতিহাসে দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

এ খবরে দেশের জনগণ ক্ষুব্ধ ও উদ্বিগ এই মন্তব্য করে বিএনপির মহাসচিব বলেন, হঠাৎ করেই খালেদা জিয়ার রায় (৮ ফেব্রুয়ারি) ঘোষণা করার বিষয়টি শুধু অপ্রত্যাশিতই নয়, রহস্যজনকও। জাতীয় নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি ও খালেদা জিয়াকে নির্বাচন প্রক্রিয়ার বাইরে রাখার জন্য দ্রুত রায় ঘোষণা সরকারের অপচেষ্টার অংশ। বিচার বিভাগ ও আইনের শাসন নিয়ে জাতি ক্ষুব্ধ, ক্রুদ্ধ ও উদ্বিগ্ন। রায় নিয়ে কর্মসূচির বিষয়ে জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, আগে রায় আসুক, তারপর এ বিষয়ে পরে বলব।

বিএনপি মহাসচিব বলেন, গত ২৫ জানুয়ারি বকশিবাজারের আলিয়া মাদরাসা মাঠে স্থাপিত আদালতে হঠাৎ করে আসামী পক্ষের আইনজীবীদের বক্তব্য বন্ধ করে ৮ ফেব্রুয়ারি মিথ্যা, বানোয়াট মামলার রায়ের দিন ধার্য করেছে। এমনটা বাংলাদেশের ইতিহাসে নজিরবিহীন ঘটনা বলে সিনিয়র আইনজীবিরা মনে করেন।

তিনি বলেন, বিচার বিভাগ ও আইনের শাসন নিয়ে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের আচরণে মানুষ আজ ক্ষুব্ধ এবং ক্রব্ধ। তারা গণতন্ত্র ধ্বংসের চক্রান্তে লিপ্ত। বৈঠক শেষে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, জাতীয় স্থায়ী কমিটির আজকের সভা থেকে দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াসহ কয়েকজন নিরাপরাধ ব্যক্তিকে মিথ্যা, বানোয়াট ও রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা দিয়ে সরকারের আইন-আদালতের নিয়মনীতির বিরোধী আচরণের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছে। এ ব্যাপারে দেশবাসীকে ঐক্যবদ্ধ গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে বিচারের নামে সরকারি ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার হওয়া আহ্বান জানাচ্ছে। এর আগে রাত সাড়ে ৯ টায় খালেদা জিয়ার সভাপতিত্বে স্থায়ী কমিটির বৈঠক শুরু হয়। বৈঠকেই দলের অবস্থান সম্পর্কে সিদ্ধান্ত জানানো হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত