প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ফুল বাণিজ্যে একধাপ এগিয়ে যশোরের ঝিকরগাছা

ফারমিনা তাসলিম: সারাদেশের বিভিন্ন এলাকায় ফুলবাগান থাকলেও ফুল বাণিজ্যে একধাপ এগিয়ে আছে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলা। যা সারাদেশের ৮০ ভাগ ফুলের চাহিদা মেটায়।

বাহারি ফুলের মন মাতানো সৌরভ আর স্নিগ্ধতা মুগ্ধ করে যে কাউকে। আর ফুলপ্রেমীদের পছন্দে পূর্ণতা আনতে দেশের ৮০ ভাগ ফুলের চাহিদা মেটাচ্ছে যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলা। এখানকার সাতশো হেক্টর জমিতে বাণিজ্যিকভাবে ফুলের চাষ হচ্ছে।

আঁকাবাঁকা মেঠো পথ, দুই ধারে সবুজের ছাউনি। দৃষ্টিসীমার পুরোটা জুড়েই কেবল সৌন্দর্য্যরে হাতছানি।

সবুজের এমন ফল্গুধারায় রঙের দ্যুতি ছড়াচ্ছে সারি সারি গোলাপের বাগান। লাল-সবুজের মিশেলে যেন স্বর্গীয়রূপে ধরা দিয়েছে প্রকৃতি।

এমন দৃশ্য এখন যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার প্রায় সবখানে। গোলাপ, রজনীগন্ধা, গ্ল্যাডিওলাস, গাঁদাসহ বাহারী সব ফুলের সমারোহে এ যেনো ফুলেল বিছানা।

সময় বদলে গেছে সেইসাথে বদলে গেছে ফুল চাষের ধরণ। উদ্যোক্তাদের মেধা আর শ্রমে গড়ে উঠছে ব্যয়বহুল বাগান। রঙ আর সৌন্দর্য্যরে ব্যঞ্জনায় দৃষ্টিনন্দন এসব ফুল দেখে কৃত্রিম বলে ভুল হতে পারে যেকারো।

ফুল বিক্রী করতে খুব বেশি বেগ পোহাতের হয়না এখানকার চাষীদের। স্থানীয় গদখালি বাজারেই চলে বেচাকেনা। দাম নিয়েও রয়েছে সন্তুষ্টি। তবে দিনকে দিন প্লাস্টিকের ফুলের চল বাড়তে থাকায় দুশ্চিন্তা বাড়ছে ফুল চাষীদের।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হিসেবে, দেশে উৎপাদিত ফুলের ৮০ ভাগ যোগান দেয় যশোর অঞ্চল। প্রতিবছর এখানকার এক হাজার হেক্টর জমিতে বাণিজ্যিকভাবে হয় ফুলচাষ।

সূত্র : চ্যানেল টোয়েন্টি ফোর

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত