প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

দীর্ঘ ৪৮ বছরেও যুগোপযোগী হয়নি কাস্টমস আইন (ভিডিও)

জুয়াইরিয়া ফৌজিয়া: সরকার ব্যবসাকে সহজ করতে নানা পদক্ষেপ নিলেও দীর্ঘ ৪৮ বছরে যুগোপযোগী করা হয়নি কাস্টমস অ্যাক্ট। যার কারণে বিদ্যমান কাস্টম আইনের অনেক ধারা আমদানি-রপ্তানি নীতিমালার সঙ্গে সামঞ্জস্যপূর্ণ না হওয়ায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে ব্যবসায়ীরা। ফলে জনবল সংকট ও কাস্টম হাউসগুলোর পূর্ণাঙ্গ অটোমেশন না হওয়ায় শুল্কায়নে যেমন বিলম্ব হচ্ছে তেমনি বন্ধ হচ্ছেনা দুর্নীতি।

আমদানি-রপ্তানি বাণিজ্যকে গতিশীল করতে বন্দর থেকে দ্রুত পণ্য খালাসে ১৯৯৪ সাল থেকে কাস্টম হাউসগুলোর অটোমেশনের প্রক্রিয়া শুরু করে এনবিআর। তবে দীর্ঘ দেড় দশকেও তা শেষ হয়নি। সংশ্লিষ্ট সব সংস্থার সাথে অনলাইনে সংযুক্তি না থাকায় এখনো অনেক কাজই হচ্ছে ম্যানুয়ালি। ফলে বন্ধ হচ্ছেনা দুর্নীতি। অন্যদিকে কাস্টম অ্যাক্ট যুগোপযোগী না হওয়ায় আমদানি-রপ্তানির ক্ষেত্রে পোহাতে হচ্ছে নানা জটিলতা।

এক্সপোটার্স অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি মো. হাতেম বলেন, আমদানি ও রপ্তানি নীতির কিছু বিষয় থাকে। যেগুলোর জটিলতা দূর করে সহজীকরণ করা হয়েছে।

সুবিধাভোগীদের অভিযোগ, বিভিন্ন কাস্টম হাউসে শুল্ক নির্ধারণে পার্থক্যের কারণে ব্যবসায়ে অসম প্রতিযোগিতা তৈরি হচ্ছে। এছাড়া অনেক সময় সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়াই হয়রানি করা হয়।

ঢাকা কাস্টম এজেন্ট অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক ফারুক আলম বলেন, চট্টগ্রামে একটা পণ্য আনতে ট্যাক্স লাগে দশ লাখ টাকা। আর এর সমপরিমাণ পণ্য এয়ারে আনলেই খরচ হয় ১৫ লাখ। এতে করে আমরা আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হই।

বিশেষজ্ঞরা বলেন, অনিয়ম ও অর্থ পাচার বন্ধ করতে হলে ব্যাংক, বন্দর ও কাস্টম হাউসসহ সংশ্লিষ্ট সব সংস্থার সক্ষমতা ও সমন্বয় বাড়াতে হবে।

এনবিআর-এর সাবেক সদস্য ফরিদ আহমেদ বলেন, একটা পোর্টে এখনোও অনেকটা অরক্ষিত। এর সাথে যেই সমস্ত রেগুলেটারি এজেন্সি আমদানি বাণিজ্যের সাথে জড়িত আছে, এদের প্রত্যেকের মধ্যে সমন্বয় করা প্রয়োজন।

এনবিআর চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন বলেন, আমাদের কাস্টম অ্যাক্ট অলরেডি ফাইনাল। অর্থমন্ত্রী চ‚ড়ান্ত করলেই, আমি এটি মন্ত্রীসভায় অনুমোদন দিবো। এছাড়া এক জায়গা থেকে সব সেবা দিতে ন্যাশনাল সিঙ্গেল ইনডো প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

সূত্র : সময় টিভি

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত