প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘দুই এতিমের মাধ্যমে টাকা আত্মসাত করেছিলেন খালেদা জিয়া’

নিজস্ব প্রতিবেদক : জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলার রায় ঘোষণা হবে আগামী ৮ই ফেব্রুয়ারি। দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে আজ রায় ঘোষণার এ তারিখ নির্ধারণ করেন আদালত। এ মামলায় আসামীদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ সাজার প্রত্যাশা করেন দুদকের আইনজীবীরা। তারা বলেন, সাক্ষ্য ও যুক্তিতর্কে দুর্নীতির বিষয়টি স্পষ্ট হয়েছে।

দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল বলেন, ‘৩২ টা সাক্ষীর মাধ্যমে প্রমাণ হয়েছে বেগম জিয়া এতিমের অর্থ আত্মসাত করেছিলেন, তার দুই এতিমের মাধ্যমে। আরাফাত রহমান কোকো এবং তারেক রহমানের মাধ্যমে। আমরা ইনশাল্লাহ আশা করছি, বেগম জিয়া সহ, তারেক রহমান সহ অন্যান্য আসামী যারা আছে, তাদের সর্বোচ্চ শাস্তি, যাবজ্জীবন শাস্তি- আমরা যেটা চেয়েছি, রায়ের মাধ্যমে সেটার প্রতিফলন ঘটবে।’

অন্যদিকে  সাক্ষ্য ও যুক্তিতর্কে দুর্নীতির কোনো প্রমাণ মেলেনি বলে বেগম জিয়ার আইনজীবীরা দাবি করেছে।

১৬তম দিনের মতো জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপন কার্যক্রমে অংশ নিতে বৃহস্পতিবার সকালে বকশিবাজারে স্থাপিত অস্থায়ী বিশেষ জজ আদালতে যান বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। এ মামলার ২৩৬তম কার্যদিবসে অপর আসামি কাজী সালিমুল হকের পক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করে তার আইনজীবী আহসান উল্লাহ। পরে যুক্তিখণ্ডন করেন দুদকের আইনজীবী মোশাররফ হোসেন কাজল। বেগম জিয়ার আইনজীবী আব্দুর রেজাক খানের পাল্টাখন্ডন শেষ হলে আগামী ৮ই ফেব্রুয়ারি এ মামলার রায় ঘোষণার তারিখ ঘোষণা করেন বিচারক ড. আখতারুজ্জামান।

পরে গণমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে বেগম জিয়ার আইনজীবীরা আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, এই মামলায় বেগম জিয়া নির্দোষ প্রমাণ হবেন।

বেগম জিয়ার আইনজীবি আব্দুর রেজাক খান বলেন, ‘এই মামলাটিতে সরকারপক্ষ সম্পূর্ণরূপে ব্যর্থ হয়ে সাক্ষ্য প্রমাণ উপস্থাপন করতে। বেগম জিয়া যে অ্যাকাউন্ট খেলেন, এই মর্মে কোনো সাক্ষ্য আসে নাই। বেগম জিয়া সোনালী ব্যাঙ্ক থেকে টাকা উঠান- এই পয়েন্টে কোনো সাক্ষী আসে নাই। তিনি টাকা বণ্টন করেন- আমরা বলেছি, এরকম কোনো সাক্ষী আসে নাই। ন্যায় বিচার প্রত্যাশী আমরা। বিজ্ঞ আদালত বিচার করবেন।’

 

আগামী ৩০শে জানুয়ারি জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় যুক্তিতর্ক উপস্থাপন কার্যক্রম শুরু হয়ে তা চলবে ৩১ জানুয়ারি ও পহেলা ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত টানা তিনদিন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত