প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ছাত্রলীগের সেই নেত্রী বিএসএমএমইউতে চিকিৎসাধীন

ডেস্ক রিপোর্ট: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রগতিশীল এক ছাত্রীকে মারধরের ছবি ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া ছাত্রলীগের সেই নেত্রী শ্রাবণী শায়লা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) চিকিৎসাধীন। তার পেটে লাথি দেয়ার কারণে বমি হচ্ছে। এছাড়া তিনি হাতেও আঘাত পেয়েছেন বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।

বৃহস্পতিবার খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, শায়লা বঙ্গবন্ধু মেডিকেলের চিকিৎসক ডা. এসএম শারাফাতের তত্ত্বাবধানে চিকিৎসা নিচ্ছেন। তিনি কেবিন ব্লকের ৬০৬ নম্বর রুমে ভর্তি আছেন। চিকিৎসক জানিয়েছেন, তাকে পর্যবেক্ষণে রাখা হয়েছে। ‍সুস্থ হতে আরও ২/৩ দিন সময় লাগবে।

গত মঙ্গলবার নিপীড়ন বিরোধী শিক্ষার্থীবৃন্দের ব্যানারে বিভিন্ন দাবি নিয়ে বাম সংগঠনগুলোর নেতাকর্মীরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির কার্যালয় ঘেরাও, ভাঙচুর ও ভিসিকে লাঞ্ছিত করে। এসময় ভিসিকে উদ্ধার করতে গিয়ে ছাত্রলীগ ও বাম সংগঠনের নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় ঢাবির ইসলামিক স্টাডিজের ছাত্রী ও কুয়েত মৈত্রী হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী শায়লা ও বাম সংগঠনের এক নেত্রীর সঙ্গে হাতাহাতি ও ধস্তাধস্তির ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়।

ছাত্রলীগ নেতারা বলছেন, মঙ্গলবারের বাম সংগঠনগুলোর নেতাদের হাতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার ভবনের তিনটি গেট ভাঙচুর, ভিসির সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি ও কলার চেপে ধরার ঘটনা শুনে সাধারণ শিক্ষার্থীদের মত ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরাও সেখানে গেছেন এবং মানববলয় তৈরি করে ভিসিকে উদ্ধার করেছেন। এটি করতে গিয়ে আন্দোলনরত বাম সংগঠনের নেতাদের সঙ্গে প্রথমে তাদের তর্ক-বিতর্ক ও পরে মারামারি হয়। এতে ছাত্রলীগের ২০ জন নেতাকর্মী আহত হন।

ভিসিকে উদ্ধারের সময় ঢাবির ইসলামিক স্টাডিজের ছাত্রী ও কুয়েত মৈত্রী হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শ্রাবণী শায়লা ও তার বন্ধুরা আন্দোলনরত শিক্ষর্থীদের নিবৃত করতে গেলে দুপক্ষের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এসময় শায়লার পেটে লাথি দেয় আন্দোলনরত এক কর্মী। পরে তাদের সঙ্গে মারামারির ঘটনা ঘটে। এসময় শায়লা পেটে আঘাত পান এবং তার হাতে জখম হয়। আহত শায়লা ও তার বন্ধুদের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিকেল সেন্টারে ভর্তি করা হয়। শায়লার অবস্থার অবনতি হলে তাকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে (বিএসএমএমইউ) ভর্তি করা হয়।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত