প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যৌন হয়রানির দায়ে অলিম্পিক দলের ডাক্তারের ১৭৫ বছরের জেল

সাঈদা মুনীর: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক অলিম্পিক জিমন্যাস্টিকস দলের ডাক্তার ৫৪ বছর বয়স্ক লেরি নাসারকে ১৭৫ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মেডিকেল ট্রিটমেন্টের ছুতো করে বছরের পর বছর ধরে কিশোরী ও তরুণী জিমন্যাস্টদের যৌন হয়রানির দায়ে তাকে এ সাজা দেয়া হয়। খবর বিবিসির।

গত সাত দিন ধরে চলা এই বিচারকার্যে ল্যারির যৌন নিপীড়নের শিকার ১৬০ জন নারী জিমন্যাস্টিকরা তাদের তিক্ত অভিজ্ঞতা আদালতে ব্যক্ত করেন। তাদের মধ্যে বেশ কয়েকজন অলিম্পিয়ান ও ছিলেন।

বিচারক রোজমেরি আকিলিনা ল্যারির সাজা পড়তে গিয়ে বলেন, আমি এইমাত্র আপনার মৃত্যু পরোয়ানাতে স্বাক্ষর করলাম। এই নিপীড়িতদের অত্যাচারের গল্প শুনে আপনাকে শাস্তি দেয়া আমার জন্য অনেক সম্মানের বিষয়। কারণ আপনার আর বাইরের পৃথিবীর আলো বাতাস দেখার কোনো অধিকার নেই।

তিনি দোষী সাব্যস্ত হওয়া ওই চিকিৎসককে আরো বলেন, আমি আমার কুকুরকেও আপনার কাছে চিাকৎসার জন্য পাঠাবো না।

প্রথমে শিশু পর্নোগ্রাফি রাখার জন্য ৫৪ বছর বয়সী এই চিকিৎসকে ৬০ বছরের কারাদ- দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে আরো যুক্ত হলো ১৭৫ বছরের জেল। এ সময় এই চিকিৎসক বলেন, ‘আমি যা করেছি তার জন্য কতটা দুঃখ পাচ্ছি, তা প্রকাশের ভাষা আমার নেই।’

তবে এরপর রোজম্যারিকে লেখা ল্যারি নেসারের একটি চিঠি আদালতে উপস্থাপন করেন বিচারক। সেখানে ল্যারি লেখেন, খ্যাতি এবং অর্থের জন্য এই নারীরা তাঁকে অভিযুক্ত করে নাটক সাজাচ্ছেন। এমনকি নিজের দোষ স্বীকার করে জবাববন্দি দেওয়ার জন্য তাঁকে চালাকি করে রাজি করানো হয়েছে বলেও ওই চিঠিতে উল্লেখ করেন ল্যারি। তিনি লেখেন, ‘আমি একজন ভালো চিকিৎসক ছিলাম, আমার চিকিৎসায় কাজ হতো। যেসব রোগী এখন আমার বিরুদ্ধে অভিযোগ করছেন, তাঁরাই একসময় আমার প্রশংসা করতেন এবং বারবার আমার কাছে আসতেন।’

তবে ল্যারি নেসারের পেশাদার আচরণ নিয়ে প্রশ্ন ওঠায় ২০১৫ সালেই তাঁর সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করে মার্কিন জিমন্যাস্টিকস কর্তৃপক্ষ। এর আগে ২০১৪ সালেও মিশিগান স্টেট ইউনিভার্সিটির কোচ থাকা অবস্থায় তাঁকে তিন মাসের জন্য বহিষ্কার করা হয়। তবে এত কিছুর পরও ২০১৬ সালে ল্যারি নেসারের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ নিয়ে পত্রিকায় লেখালেখি হওয়ার আগপর্যন্ত তিনি নিয়মিতভাবে রোগী দেখছিলেন। এর এক বছর পরে একটি শিশুকে যৌন হয়রানির অভিযোগে তিনি গ্রেপ্তার হন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত