প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রশ্ন ফাঁস ঠেকাতে কাল থেকে সব কোচিং সেন্টার বন্ধ

মাহফুজ উদ্দিন খান: আসন্ন মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমানের পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে কাল শুক্রবার থেকেই দেশের সমস্ত কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

নকলমুক্ত পরীক্ষা এবং প্রশ্নপত্র ফাঁসরোধে এবার আইনের ডেসপারেট ও অ্যাগ্রেসিভ হবে মন্ত্রণালয় বলেও ঘোষণা দিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী।

আজ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সুষ্ঠু ও নকলমুক্ত পরীক্ষা নিশ্চিত করতে সরকারের এক উচ্চ পর্যায়ের কমিটির বৈঠক শেষে এসব সিদ্ধান্তের কথা জানান শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।

এসএসসি পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে অনুষ্ঠানের লক্ষ্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত জাতীয় মনিটরিং কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

আগের সিদ্ধান্ত ছিল, পরীক্ষা শুরুর তিন দিন আগে থেকে পরীক্ষা শেষ হওয়া পর্যন্ত কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধ থাকবে। এখন সেই সিদ্ধান্ত এগিয়ে এনে সাত দিন আগে থেকে শেষ হওয়া পর্যন্ত কোচিং সেন্টারগুলো বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, ‘আমরা আশা করছি, সম্পূর্ণ নকলমুক্ত পরিবেশে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। এবার পরীক্ষার্থীদের সকাল সাড়ে ৯টার মধ্যে শুধু কেন্দ্রে পৌঁছালেই চলবে না, আসনেও বসতে হবে।’

সভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ এই সিদ্ধান্তের কথা জানান। সভায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভিন্ন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, পরীক্ষা শুরু হওয়ার আধা ঘণ্টা আগে পরীক্ষার্থীদের শুধু কেন্দ্রেই নয়, তাদের নিজ নিজ আসনে গিয়ে বসতে হবে।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, তারা প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে খুবই ‘ডেসপারেট’ ও ‘অ্যাগ্রেসিভ’। কারণ দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে। এ সময় মন্ত্রী পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস রোধে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানান।

এবার কঠিন কিছু সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে জানিয়ে নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেন, ‘আমরা এগুলো অক্ষরে অক্ষরে পালন করব। আমরাও যদি কোনো কেন্দ্র পরিদর্শনে যাই, আমাদের মোবাইল ফোন রেখে যাব। কোনো শিক্ষক বা কেন্দ্র সচিবের কাছে মোবাইল ফোন পাওয়া গেলে তাঁদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

দীর্ঘদিন পর দেশে অভিন্ন প্রশ্নপত্রে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, ‘এটি আমার জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। এ চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করে সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠিত করতে আমরা সক্ষম।’

এর আগে ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বরে এক প্রজ্ঞাপন জারির মাধ্যমে ২০১৮ সালের এসএসসি পরীক্ষা অভিন্ন প্রশ্নপত্রে নেওয়ার সিদ্ধান্ত জানায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ফলাফলে বোর্ডগুলোর মধ্যে তারতম্য দূর করতে এবং উচ্চাশিক্ষার ক্ষেত্রে সমান সুযোগ সৃষ্টি করতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

পরীক্ষার সময় একটি সীমিত সময়ের জন্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক বন্ধ রাখার বিষয়ে কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ আলোচনা চলছে বলেও জানান মন্ত্রী।

উল্লেখ্য আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে সারা দেশে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা শুরু হবে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত