প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

পাকিস্তানেও মুক্তি পাচ্ছে পদ্মাবত

ওমর শাহ: বলিউডের বিতর্কিত ছবি পদ্মাবত মুক্তি পাচ্ছে ললিউডে। পাক সরকার এই ছবিকে দেখানোর জন্য ছাড়পত্র দিয়েছে। এছাড়া ভারতের পশ্চিম বাংলা, দক্ষিণ ভারত ও মহারাষ্ট্রে পরিস্থিতি শান্তিপূর্ণ হওয়ায় চলচ্চিত্রটি প্রদর্শন করা হচ্ছে। তবে মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, গুজরাট ও বিহারে অশান্তির আশঙ্কায় পদ্মাবত চলচ্চিত্র প্রদর্শন বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

পাকিস্তানে তীব্র আগ্রহ তৈরি হয়েছে এই ছবি ঘিরে। এমনিতেই বলিউডি হিন্দি ছবি পাকিস্তানে প্রবল জনপ্রিয়। সময় সময় বিভিন্ন ভারতীয় ছবি নিষিদ্ধ করেছে পাকিস্তান। যদিও সেখানে লুকিয়ে চুরিয়ে নিষিদ্ধ হওয়া ভারতীয় ছবি দেখেন পাক নাগরিকরা।
পদ্মাবত ছবি ঘিরে ভারতের কয়েকটি রাজ্যে চলছে ধুন্ধুমার কাণ্ড। রাজপুত সংগঠনগুলির দাবি, এই ছবিতে রানি পদ্মিনীকে বিকৃতভাবে উপস্থাপন করেছেন পরিচালক সঞ্জয় লীলা বনশলী। তারই প্রতিবাদে চলছে বিক্ষোভ মিছিল। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ থাকলেও বিজেপি শাসিত কয়েকটি রাজ্য ছবি প্রদর্শনে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। পাশাপাশি উগ্র রাজপুত সংগঠনের প্রবল তাণ্ডবে ছড়িয়েছে ভয়।

ভারতের গুজরাটে রাজপুত গোষ্ঠীর তা-বে ভীত হল মালিকরা আগেই জানিয়ে দিয়েছে, তারা ছবিটি দেখাবেন না। হলের বাইরে চলচ্চিত্রটি না দেখানোর নোটিশ ঝুলছে। রাজস্থানে অবস্থা আরও শোচনীয়। ছবিটি ঘিরে অশান্তির কেন্দ্র হচ্ছে রাজস্থান। তারাও জানিয়ে দিয়েছে পদ্মাবত দেখানো হবে না। বিহারও সেই পথেই।

পশ্চিমবঙ্গে সঞ্জয়লীলা বনসালির পাশে রয়েছেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন, এ রাজ্যে ছবিটি নির্বিঘ্নে  চলবে। আইন-শৃঙ্খলার দায়িত্ব নেবে প্রশাসন। এই যাবতীয় অশান্তির মূলে বিজেপি, বজরং দল ও আরএসএস-কেই দায়ী করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। কড়া নিরাপত্তার মধ্যে কলকাতাতে মুক্তি পেল পদ্মাবত। বুধবারই শহরের বেশ কয়েকটি মাল্টিপ্লেক্সে ছবির থ্রি-ডি ভার্সন মুক্তি পায়। শান্তিপূর্ণ পরিবেশেই ছবি দেখেনে সিনেমাপ্রেমীরা।

তবে বিতর্কিত চলচ্চিত্রটির টিকিটও বিক্রি হচ্ছে হু-হু করে। ইতোমধ্যেই বহু মাল্টিপ্লেক্স হাউসফুল। দিল্লি, পাঞ্জাব, উত্তরাখন্ড ও হিমাচলপ্রদেশেও পদ্মাবত ঘিরে কোনও অশান্তিতে নেই। এদিকে পদ্মাবতের মুক্তি ঘিরে ভারত জুড়ে সতর্কতার মধ্যে বন্ধ রাখা হয়েছে চিতোরগড় ফোর্ট। সকাল থেকে ফোর্টেও সামনে কড়া নিরাপত্তা রয়েছে। ফোর্টে ঢুকতে দেওয়া হচ্ছে না পর্যটকদের। এই নিয়ে তাঁদের মধ্যে ক্ষোভও তৈরি হয়েছে। পদ্মাবত অশান্তি ইন্ধনের অভিযোগে পুলিশ হেফাজতে হিন্দু সেনা অধ্যক্ষ বিষ্ণু গুপ্তাকে দিল্লির সরিতা বিহারের বাড়ি থেকে আটক করা হয়েছে। আরও কয়েকজন হিন্দু সেনা কর্তাকে গ্রেফতারের আশঙ্কা করা হচ্ছে।

রাজস্থানের উদয়পুরে প্রজাতন্ত্র দিবসে সরকারি ও বেসরকারি স্কুলগুলিকে ঘুমর গানে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন এডিএম। মুম্বইয়েও সিনেমা হলের সামনে বাড়ানো হয়েছে পুলিশি নিরাপত্তা। বুধবার বাসে হামলার পর গুরুগ্রামে বেশিরভাগ স্কুলই বন্ধ রয়েছে। অন্যদিকে নিরাপত্তা চেয়ে মুখ্যমন্ত্রীর দরবারে মধ্যপ্রদেশের হলমালিকরা শরণাপন্ন হয়েছেন। এদিকে বিহারের পাটনাতেও মাল্টিপ্লেক্সে ছবির প্রদর্শন বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর সমস্ত অগ্রিম বুকিং বাতিল করা হয়েছে। সূত্র: ডেইলি পাকিস্তান

সর্বাধিক পঠিত