প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ছাত্রলীগকে ডাকা অদক্ষতা

ইসমাইল বাবু : আন্দোলনকারী ছাত্রছাত্রীকে থামাতে না পেরে প্রশাসন যে ব্যর্থ হয়েছে, সে ব্যর্থতা থেকে তারা ছাত্রলীগকে যে ডেকে এনেছেন, সেটা খুবই ন্যক্কারজনক। এটা আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের মানহানিকর। প্রশাসনের এটা করা একেবারে ঠিক হয়নি এবং তা অনুচিত, অপরিপক্ষ। এতে করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন রাজনৈতিক দলীয় পরিচয় দিয়েছেন। বিশ্ববিদ্যালয় যতটুকু অস্থিতিশীল হওয়া প্রশাসনের কারণে হয়েছে। পরিস্থিতি সামলানোর জন্য তাদের কাছ থেকে আরো দক্ষ আচরণ আশা করেছিলাম। আমাদের অর্থনীতির সাথে আলাপকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক ড. সামিনা লুৎফা নিত্রা এসব কথা বলেন।

তিনি আরও বলেন, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলন হয়েছে। হয়ও। সামনেও হবে। এটা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্য। সাধারণ ছাত্রছাত্রী বা ছাত্র সংগঠন যেকোনো বিষয় নিয়ে প্রতিবাদ করার অধিকার আছে। প্রশাসন পরিস্থিতি সামলাতে পারেনি, এটা তাদের অদক্ষতার প্রমাণ। ছাত্রলীগকে ডাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসন চরম অদক্ষতার পরিচয় দিয়েছেন।

তিনি বলেন, ভিডিও ফুটেজে পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে রড, লাঠি নিয়ে সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর ছাত্রলীগ হামলা করছে। যে দাবি নিয়ে শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করছে, সেটা বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের দেখার বিষয়। কিন্তু দাবি জানাতে এসে নিপীড়নের শিকার হওয়া খুবই ন্যক্কারজনক। আমাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য ক্ষতিকর হয়েছে। প্রক্টর বলছিলেন এরা বহিরাগত। তখন প্রক্টরকে বলেছি, আপনি ঢাকা মেডিকেলে এসে দেখেন তারা বহিরাগত কিনা? তাহলে আমি মেনে নেব। আহতদের মধ্যে আমার ক্লাসের পাঁচ-ছয়জন ছাত্র ছিল। সম্পাদনা : খন্দকার আলমগীর হোসাইন

 

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত