প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ঢাবিতে বাম সংগঠনগুলোর কার কী অব্যস্থা?

ডেস্ক রিপোর্ট :  প্রাচ্যের অক্সফোর্ডখ্যাত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ। বাঙালি, বাংলাদেশ, স্বাধীনতা, স্বাধীকার আদায়ের সব আন্দোলন সংগ্রামের গৌরব ধারণ করে এগিয়ে চলছে এ প্রতিষ্ঠানটি। আদর্শভিত্তিক রাজনীতির সুতিকাগার খ্যাত ঢাবি থেকেই উঠে এসেছে সর্বাধিক নেতৃত্ব। সম্প্রতি আবারো আলোচনায় এসেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগের ভ্রাতৃপ্রতীম ছাত্র সংগঠন ছাত্রলীগ এবং বামপন্থীদের সংঘর্ষ নিয়ে আলোচনা রাজনীতির ভেতরে বাইরে। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোতে সরব সবাই।

পূর্বপশ্চিমবিডি.নিউজের অনুসন্ধানে ঢাবিতে সক্রিয় এবং নামকাওয়াস্তে সক্রিয় (নিষ্ক্রিয়) যেসব বাম সংগঠন রয়েছে এবং তাদের নেতাদের নামের তালিকা তুলে ধরা হলো পাঠকদের জন্য- বাংলাদেশ ছাত্র ইউনিয়ন, সভাপতি : জি এম জিলানী শুভ, সাধারণ সম্পাদক : লিটন নন্দী। সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি : নাঈমা খালেদ মনিকা, সাধারণ সম্পাদক : স্নেহাদ্রি চক্রবর্তী রিন্টু। বাসদ (মার্কসবাদী) অর্থাৎ মুবিনুল হায়দার চৌধুরী ও শুভ্রাংশু চক্রবর্তীর নেতৃত্বাধীন বাসদের ছাত্রসংগঠন এটি।

খালেকুজ্জামানের নেতৃত্বাধীন বাসদের সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের সভাপতি : ইমরান হাবিব রুমন, সাধারণ সম্পাদক: নাসির উদ্দিন।

জোনায়েদ সাকীর গণসংহতি আন্দোলনের বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন ক্রিয়াশীল আছে। কমরেড বদরুদ্দীন উমর ও ডা. ফয়জুল হাকিম লালার নেতৃত্বাধীন জাতীয় মুক্তি কাউন্সিলের বাংলাদেশ ছাত্র ফেডারেশন আছে একটি, তবে এটা এখন নামকাওয়াস্তে। সাকী প্রথমে এটিই করতেন, পরে বিদ্রোহ করেন, বহিষ্কৃত হন। এক পর্যায়ে তিনি নিজেই আলাদা ছাত্র ফেডারেশন গড়ে তোলেন। মোট কথা, ঢাবি ক্যাম্পাসে বাম সংগঠনগুলোর মধ্যে সবচেয়ে সক্রিয় সিপিবি, দুই বাসদ, গণসংহতি আন্দোলনের চারটি ছাত্রসংগঠন।

এছাড়া জাসদপন্থী ছাত্রলীগের আম্বিয়া অংশের সভাপতি: মো. শাহজাহান আলী সাজু, সাধারণ সম্পাদক: গৌতম শীল। হাসানুল হক ইনু অংশের সভাপতি : মুহাম্মদ সামছুল ইসলাস সুমন, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক:আহসান হাবীব শামীম। দল ভাঙার পর ইনু অংশের ছাত্রলীগের এখনো কাউন্সিল হয়নি।

বাংলাদেশ ছাত্র মৈত্রী হলো রাশেদ খান মেননের ওয়ার্কাস পার্টির ছাত্রসংগঠন। বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রী হলো সাইফুল হকের বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির ছাত্রসংগঠন। এটা আছে নামকাওয়াস্তে। দিলীপ বড়ুয়ার দলের ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র আন্দোলন এবং মোজাফফর ন্যাপের ছাত্রসংগঠন বাংলাদেশ ছাত্র সমিতি। এ দুটি নামকাওয়াস্তে।

জাতীয় ছাত্রদল নামে একটা সংগঠন আছে। তাদের কার্যক্রম পাঠচক্র, পোস্টার ও লিফলেট বিতরণে সীমাবদ্ধ। সংগঠনটি যশোরের আবদুল হক, অর্থাৎ হক-তোয়াহা ‘র হকের মতাদর্শের সংগঠন এটা। কিছুটা ভাসানীপন্থী। উৎসঃ পূর্বপশ্চিম

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত