প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

যুক্তরাষ্ট্রকে বাদ দিয়েই মার্চে সই হচ্ছে টিপিপি

ডেস্ক রিপোর্ট : অবশেষে যুক্তরাষ্ট্র ছাড়াই আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে বিশ্বের অন্যতম বৃহত্ বাণিজ্য চুক্তি ট্রান্স প্যাসিফিক পার্টনারশিপ (টিপিপি)। কানাডাকে সঙ্গে নিয়ে আগামী ৮ মার্চ চিলিতে মোট ১১টি দেশ টিপিপি চুক্তি সই করবে বলে জানা গেছে। অস্ট্রেলিয়ার বাণিজ্যমন্ত্রী স্টিভ কুয়াবো বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। খবর গার্ডিয়ান, এএফপি, সিএনএন।

কানাডা সম্মতি প্রকাশের পর আগামী ৮ মার্চ চুক্তিটি সইয়ের প্রত্যাশা করা হচ্ছে। কানাডা এখন তাদের রফতানি খাত বহুমুখী করার চেষ্টায় রয়েছে; সে অনুযায়ী এ চুক্তিটি দেশটির জন্য খুবই তাত্পর্যপূর্ণ। দাভোসে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামে কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো টিপিপিকে ‘সঠিক চুক্তি’ হিসেবে অভিহিত করেছেন।

এমন একটা সময়ে টিপিপি স্বাক্ষরের সময়সূচি ঘোষণা করা হলো যখন নর্থ আমেরিকান ফ্রি ট্রেড এগ্রিমেন্ট (নাফটা) পুনর্গঠনে মন্ট্রিলে ষষ্ঠ দফায় বৈঠকে বসেছে কানাডা, যুক্তরাষ্ট্র ও মেক্সিকো।

গত বছর মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প টিপিপি থেকে যুক্তরাষ্ট্রকে প্রত্যাহার করে নেয়ার ঘোষণা দেন। এরপর থেকেই টিপিপির ভবিষ্যত্ নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়। মঙ্গলবার টিপিপিতে যোগদানে কানাডা সম্মতি প্রকাশের পর বাণিজ্য চুক্তিটিকে ঘিরে আবার আশাবাদ তৈরি হয়েছে।

পরিবেশ ও শ্রম সুরক্ষা বিষয়ক উদ্বেগ থাকায় টিপিপির পূর্ব সংস্করণে স্বাক্ষর করেনি কানাডা। এর ওপর গত বছর ভিয়েতনামে এপেক সম্মেলনে টিপিপি বিষয়ে চূড়ান্ত ঘোষণা প্রদান কানাডার কারণে সম্ভব হয়নি। এরপর থেকেই কানাডাকে টিপিপির দলে আনতে টোকিও এবং ক্যানবেরা রীতিমতো লবিং শুরু করে। দেশ দুটির এ প্রচেষ্টায় সাড়া দিয়ে টিপিপিতে যোগ দেয়ার সম্মতি জানিয়েছে অটোয়া। চুক্তিতে কানাডার নিজস্ব সাংস্কৃতিক শিল্পে সুরক্ষার মতো বিবদমান বিভিন্ন বিষয় সমাধান করতে দেশগুলোর বাণিজ্য কর্মকর্তারা টোকিওতে বৈঠক করেছেন।

কানাডার বাণিজ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, টিপিপি খসড়ায় জাপানের সঙ্গে গাড়ি বিষয়ে সুবিধাজনক ব্যবস্থা অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে এবং তাদের উদ্বেগে থাকা মেধাস্বত্ব ধারা স্থগিত হয়েছে।

জাপানের সভাপতিত্বে কানাডা ছাড়াও নতুন টিপিপির বাকি সদস্য দেশগুলো হচ্ছে— অস্ট্রেলিয়া, ব্রুনেই, চিলি, মালয়েশিয়া, মেক্সিকো, নিউজিল্যান্ড, পেরু, সিঙ্গাপুর ও ভিয়েতনাম। এশিয়ায় চীনের বর্ধিত প্রভাব খর্ব করার উদ্দেশ্যে প্রথমদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রশাসন টিপিপির হাল ধরেছিল; আর এ কারণেই চীন টিপিপিতে নেই।

জাপানের অর্থমন্ত্রী তশিমিতসু মোতেগি টিপিপি প্রসঙ্গে বলেছেন, এটি বিশ্বের কোথাও কোথাও মাথাচাড়া দেয়া ‘রক্ষণশীলতা উতরে যাওয়ার ইঞ্জিন’ হয়ে উঠবে। তিনি আরো জানান, চুক্তিটিতে যোগ দিতে যুক্তরাষ্ট্রকে উত্সাহী করতে এর গুরুত্ব ওয়াশিংটনের কাছে ব্যাখ্যা করা হবে।

এদিকে টিপিপির ১৪ ট্রিলিয়ন ডলারের বাজারটিকে ৯৮ শতাংশ শুল্কমুক্ত করার পরিকল্পনা রয়েছে অধিভুক্ত দেশগুলোর। গত বছর অস্ট্রেলিয়ার মোট রফতানির প্রায় এক-চতুর্থাংশেরই গন্তব্য ছিল টিপিপিভুক্ত ১১টি দেশে। আর্থিক মূল্যে হিসাব করলে তা প্রায় ৮ হাজার ৮০০ কোটি ডলার। অস্ট্রেলিয়ার বাণিজ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, টিপিপির আওতায় কানাডা ও মেক্সিকোর সঙ্গে নতুন করে মুক্তবাণিজ্য চুক্তি সম্পন্ন হবে। সে সঙ্গে ‘আরো অনেক বাজারের সঙ্গে সংযোগ হবে।’ টিপিপি চুক্তির মধ্যে সংশ্লিষ্ট অঞ্চলটিতে সামুদ্রিক খাবার, ওয়াইন, ভেড়ার মাংস, সুতি পশমি কাপড় ও শিল্প পণ্যে পুরোপুরিভাবে শুল্ক অবলুপ্ত করা হবে।

দাভোসে উপস্থিত অস্ট্রেলিয়ার বাণিজ্যমন্ত্রী রেডিও ন্যাশনালকে আরো বলেন, টিপিপির সুবাদে জাপানের বাজারে অস্ট্রেলিয়ার গরুর মাংস ব্যবসায়ীরা আরো প্রবেশাধিকার পাবে। ফলে ‘শুল্ক আরো কমবে’, যা ‘ব্যয়বহুল মার্কিন গরুর মাংসের’ সঙ্গে প্রতিযোগিতা সুবিধা উপভোগ করবে।

তবে টিপিপি নিয়ে খোদ অস্ট্রেলিয়ার ভেতরেই কিছু বিতর্ক রয়েছে। এর মধ্যে বিনিয়োগকারীদের রাষ্ট্রীয় বিবাদ মীমাংসা ধারা নিয়ে উদ্বেগ রয়েছে। কারণ তারা আশঙ্কা করছে, এই আইনে টিপিপি সদস্য দেশগুলো থেকে দক্ষ অভিবাসী কর্মীদের অনুমোদন দেয়ার আগে স্থানীয় শ্রমবাজার যাচাই করে নেয়ার শর্তাবলি শিথিল করা হবে। তবে চুক্তিটির বিপক্ষে ‘ভীতি সৃষ্টির প্রচারণার’ অংশ হিসেবে এই উদ্বেগগুলো নাকচ করে দিয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার বাণিজ্যমন্ত্রী। তিনি এ প্রসঙ্গে বলেন, টিপিপির কারণে ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলো যাচাইয়ে সরকারের সক্ষমতা কমে যাবে এটি ‘মোটেও সত্যি নয়।’ এছাড়া চুক্তির ফলে ‘অদক্ষ বা মানহীন বিদেশী কর্মীদেরও হিড়িক পড়বে না।’

অস্ট্রেলিয়ার ন্যাশনাল ফারমার্স ফেডারেশনের প্রধান নির্বাহী টনি মাহার টিপিপিকে স্বাগত জানিয়ে বলেছেন, ‘চুক্তিটি কৃষকদের জন্য মঙ্গলজনক। আমাদের তৈরি খাদ্যপণ্য ও সুতা বিক্রির জন্য আরো নতুন বাজার পাওয়া যাবে।’ দেশটির ইন্ডাস্ট্রি গ্রুপের প্রধান নির্বাহী ইনস উইলক্স টিপিপিকে ‘খুবই ইতিবাচক পদক্ষেপ’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন। তিনি আশা করছেন ভবিষ্যতে যুক্তরাষ্ট্র টিপিপিতে যোগ দেবে। বণিক বার্তা

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত