প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

‘পরমাণু সমঝোতা মার্কিন মিথ্যাচারকে উন্মোচিত করেছে’

অনলাইন রিপোর্ট : ইসলামি প্রজাতন্ত্র ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র বাহরাম কাসেমি বলেছেন, ২০১৫ সালে সেই হওয়া পরমাণু সমঝোতার মাধ্যমে সারা বিশ্বের কাছে মার্কিন মিথ্যাচার উন্মোচিত হয়ে গেছে। ইরান সম্পর্কে মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেন্সের সাম্প্রতিক এক মন্তব্যের জবাবে বাহরাম কাসেমি একথা বলেছেন।

এসময় বাহরাম কাসেমি মার্কিন সরকারের পক্ষ থেকে ইরান-বিরোধী নানা তৎপরতার একটি তালিকা তুলে ধরেন।

গত সোমবার পেন্স ইহুদিবাদী ইসরাইলের সংসদ নেসেটে দেয়া ভাষণে অভিযোগ করেছেন, “ইরান সরকার গোপনে পরমাণু কর্মসূচি পরিচালনা করছে এবং এর মাধ্যমে আরব অঞ্চলে ব্যাপকভিত্তিক প্রভাব বিস্তারের চেষ্টা চালাচ্ছে।” নেসেটে দেয়া ভাষণে পেন্স আরো বলেছেন, ২০১৫ সালে সই হওয়া পরমাণু সমঝোতা ছিল আমেরিকার জন্য একটি বিপর্যয় এবং বর্তমান মার্কিন সরকার তা বেশিদিন টিকিয়ে রাখবে না।

পেন্সের এসব বক্তব্যের জবাবে বাহরাম কাসেমি গত কয়েক দশকে ইরান-বিরোধী মার্কিন তৎপরতার তালিকা তুলে ধরে বলেন, ইরানের জনগণের ওপর রাসায়নিক হামলা সমর্থন করা থেকে শুরু করে বর্বর নিষেধাজ্ঞা আরোপ -সবই করেছে ওয়াশিংটন। তিনি বলেন, এই আমেরিকা ১৯৮৮ সালে ইরানের যাত্রীবাহী বিমান পর্যন্ত ভূপাতিত করেছে। শুধু তাই নয়, মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প সম্প্রতি ইরানি জাতিকে সন্ত্রাসী বলে আখ্যা দিয়েছেন। পাশাপাশি পরমাণু সমঝোতা বাতিলের চেষ্টা করছেন।

মার্কিন কর্মকর্তাদের এসব বক্তব্য সত্ত্বেও ইরান কখনই পরমাণু বোমা বানাতে চায় নি এবং কখনো বানাবেও না বলে পরিষ্কার করেন বাহরাম কাসেমি। তিনি ইরান সম্পর্কে মার্কিন প্রশাসনের যুদ্ধংদেহী অবস্থানকেও তুলে ধরেন।

কাসেমি বলেন, পরমাণু সমঝোতার মাধ্যমে সুস্পষ্টভাবে ফুটে উঠেছে যে, আমরিকা বহু বছর ধরে বিশ্বের কাছে মিথ্যার বেসাতি করে জনমতকে প্রভাবিত করার চেষ্টা চালিয়েছে। বাহরাম কাসেমি আরো বলেন, পেন্সকে এ বাস্তবতা বুঝতে হবে যে, ইরাক ও সিরিয়ার মতো কিছু স্বাধীন দেশ সম্পর্কে আঞ্চলিক এবং বাইরের কিছু দেশের সম্মিলিত ষড়যন্ত্র নস্যাৎ করেছে ইরান। মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীলতা সৃষ্টির মাধ্যমে আমেরিকা মুসলিম বিশ্বের ঐক্য ও সংহতি প্রতিরোধের ষড়যন্ত্র করছে এবং এর মাধ্যমে ইসরাইলের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে চায় ওয়াশিংটন।

সূত্র : পার্সটুডে

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ