প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

মির্জাগঞ্জের এস,এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়
৩৩ বছরেও কোন সরকারি ভবন নির্মিত হয়নি

সুব্রত সাহা,মির্জাগঞ্জ (পটুয়াখালী): পটুয়াখালীর মির্জাগঞ্জ উপজেলার পূর্ব মির্জাগঞ্জ এস,এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠার ৩৩ বছর আলো ছড়ালেও আজ পর্যন্ত কোন সরকারি ভবন নির্মিত হয়নি।

পায়রা নদী তীরবর্তী হওয়ার কারণে জোয়ার কিংবা বৃষ্টি হলে পানিতে প্লাবিত হয়ে যায় বিদ্যালয়ের মাঠ। এতে শিক্ষকসহ শিক্ষার্থীদের যাতায়াতে ভোগান্তির যেন শেষ নেই। এ বিষয়ে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ একাধিকবার উর্ধ্বতন দপ্তরে লিখিত ভাবে জানালেও আজ পর্যন্ত নজরে আসেনি কারো।

বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, মির্জাগঞ্জ উপজেলার মির্জাগঞ্জ ইউনিয়নের পূর্ব মির্জাগঞ্জ প্রত্যন্ত গ্রাম হওয়ায় ১৯৮৫ সালে আলহাজ্ব মোঃ ইউসুফ আলী হাওলাদারের সহযোগীতায় সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মরুহুম মোয়াজ্জেম হোসেন খান গ্রামের নামানুসারে পূর্ব মির্জাগঞ্জ এস,এম মাধ্যমিক বিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠা করেন্।বিদ্যালয়টি ১৯৮৭ সালে এমপিওভুক্তের আওতায় আসে। এরপর থেকে বিদ্যালয়টি সুনামের সাথে পরিচালিত হয়ে আসলেও নানা প্রতিবন্ধকতা পেরিয়ে এলেও এখন পর্যন্ত পাকা ভবন নির্মিত হয়নি।

বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক রনজিৎ চন্দ্র ঢালী বলেন, বিদ্যালয়ের পিছনে তালতলী খালটির পূর্বে খরস্রোতা পায়রা নদীর সাথে মিলে গেছে। পায়রা নদীর জোয়ার কিংবা অমাবশ্যা বা পূর্ণিমার জোয়ারের সময়ে তালতলী খালটি তার আসল রুপ ফিরে পায়। এতে তালতলীর বিদ্যালয়ের মাঠ পানিতে তলিয়ে যায়। স্কুলে যাতায়াতের সময় কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীরা এক হাতে বই ও পায়ের জুতা নিয়ে পার হতে হয়।

বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোঃ মাইনুদ্দিন সিকদার বলেন, এক সময়ে ছিলো উপজেলার মধ্যে প্রত্যান্ত গ্রাম পূর্ব মির্জাগঞ্জ। এ এলাকার শিক্ষার আলো বিস্তারে বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা হলেও যোগাযোগ ব্যবস্থাসহ বিদ্যালয়টি আজও পাকা ভবন হয়নি। ফলে শিক্ষার্থীদের ঝড়-বৃষ্টি উপেক্ষা করে ক্লাশ করতে হচ্ছে।

তাই এখানে একটি নতুন ভবন নির্মাণের প্রতি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ দৃষ্টি দিবেন।

সর্বাধিক পঠিত