প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ত্রিপুরায় জঙ্গিদের সাথে হাত মিলিয়েছে বিজেপি: মানিক সরকার

 

অনল রায় চৌধুরী, আগরতলা : ভারতের ত্রিপুরায় নির্বাচনে জিততে সন্ত্রাসবাদীদের সাথে হাত মিলিয়েছে বিজেপি। বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই ভাষাতেই গেরুয়া শিবিরকে আক্রমণ শানালেন মুখ্যমন্ত্রী মানিক সরকার৷

তাঁর মতে ভোটে জেতাটাই বিজেপির কাছে বড় ব্যাপার৷ তারজন্য যে কোনও ধরণের পদক্ষেপ তারা নিতে পারে৷ সেই পদক্ষেপের অংশ হিসেবে এবার জঙ্গিদের সাথে সমঝোতায় এসেছে বিজেপি বলে দানি মুখ্যমন্ত্রীর৷

মঙ্গলবার রাজ্যের ডুকলি এলাকায় এক জনসভায় মানিক সরকার বলেন, পিপলস ফ্রন্ট অফ ত্রিপুরা বা আইপিএফটি-র সাথে হাত মেলানোর অর্থ সন্ত্রাসবাদীদের সাথে হাত মেলানো৷ কিন্তু বিজেপির সেই মূল্যবোধ নেই৷

প্রসঙ্গত, রবিবারই আইপিএফটি-র সভাপতি এন সি দেববর্মা জানান, বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির সঙ্গে আইপিএফটি-র আসন সমঝোতা নিয়ে বৈঠক হয়েছে। ৬০টি আসনের মধ্যে আইপিএফটি ৯টি আসন পাবে বলে বৈঠকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হয়েছে।

আইপিএফটি’র সভাপতির সঙ্গে বৈঠকের আগে বিজেপি নেতৃরা দীর্ঘসময় নিজেদের মধ্যে আলোচনা করেন। নিজেদের অভ্যন্তরীণ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দলের সর্বভারতীয় সাংগঠনিক সাধারণ সম্পাদক রাম মাধব, হিমন্ত বিশ্বশর্মা, সুনীল দেওধর, ত্রিপুরা প্রদেশ কমিটির সভাপতি বিপ্লব কুমার দেব, সম্পাদক প্রতিমা ভৌমিক, দুই বিধায়ক সুদীপ রায়বর্মণ ও আশিষ সাহা৷

গেরুয়া ঝড়ে ত্রিপুরায় কংগ্রেসের অবস্থা বেশ করুণ। দলের নয় বিধায়কের মধ্যে ছয়জনই এখন বিজেপিতে। আরও একজন বিজেপি শিবিরে নাম লিখিয়ে এখনো কাগজে-কলমে অবশ্য কংগ্রেসেই রয়ে গেছেন। দলের সাবেক প্রদেশ সভাপতিদের মধ্যে তিনজন এখন বিজেপিতে। আরও একজন বিজেপির দিকে পা বাড়িয়েই এখনো ‘নো ম্যানস ল্যান্ড’-এ দাঁড়িয়ে। দুই সাবেক কংগ্রেস পরিষদীয় দলনেতাও এখন পদ্মশিবিরে৷ রাজ্যে সিপিএমের প্রতিদ্বন্দ্বী হিসেবে বিজেপিকেই মান্যতা দেওয়া হচ্ছে৷

তবে জেতার ব্যাপারে আশাবাদী মুখ্যমন্ত্রী৷ তাঁর বক্তব্য কোনও জোটই ত্রিপুরা থেকে বামেদের সরাতে পারবে না৷ যদিও সমীক্ষা বলছে, ত্রিপুরায় মানিক সরকারের দলের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠান বিরোধী হাওয়া রয়েছে। সারা দেশে টিমটিম করে কেরল ও ত্রিপুরাতেই বামেদের সরকার রয়েছে। কংগ্রেস ছেড়ে বড় অংশ তৃণমূলে যোগ দিয়েছে। এদিকে বিজেপি দলও বহরে ক্রিপুরায় বেড়েছে। ফলে এই রাজ্যে ভোটের লড়াই ক্রমশ জমে উঠতে চলেছে বলেই ওয়াকিবহাল মহলের মত।

ত্রিপুরায় নির্বাচন হবে ১৪ই ফেব্রুয়ারি আর গণনা তেসরা মার্চ৷ ২০১৯ লোকসভা ভোটের আগে এটাই সেমিফাইনাল বিজেপি-কংগ্রেসের সামনে৷ মোট ৮টি রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফলে আন্দাজ পাওয়া যাবে, কেন্দ্রের নির্বাচনে কোন দল কতটা টক্কর দিতে প্রস্তুত৷

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত