প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

লোকসানের মুখে সুন্দরবনের শুঁটকি ব্যবসায়ীরা

মোহাম্মদ রফিক : ভয়াবহ লোকসানের মুখে সুন্দরবনের দুবলার চরের শুঁটকি ব্যবসায়ীরা। চলতি মৌসুমে দু’দফা নিম্নচাপের প্রভাবে এ অবস্থা তাদের লক্ষ্য পূরণে সংকট দেখা দিয়েছে।
সুন্দরবনের দক্ষিণে বঙ্গোসাগরের দুবলার চরে নভেম্বর থেকে মার্চ- এই ৫ মাস ধরে এখানে চলে শুঁটকির কারবার।
বন বিভাগের অনুমতি নিয়ে সাগরে মাছ ধরে জেলেরা এবং চরগুলোতে চলে মাছ শুঁটকির প্রক্রিয়া।
সুন্দরবনসহ কয়েকটি জেলায় কয়েক হাজার জলে ধরা শুঁটকির ব্যবসা করে দুবলার চরে। চট্টগ্রামের লোকজন ও ব্যবসা করতে আসে এখানে তবে চলতি মৌসুমে দুদফা নিম্নচাপে ভয়াবহ ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে তারা।
গ্রামের লোকজন বলে, দু-তিন মণ শুঁটকি মাছ নদীতে ফেলে দেয়া হয়, বর্ষা হওয়ায় শুঁটকি মাছ শুকাতে না পেরে ঋণ কিছুই দিতে পারে না।

শীতের মৌসুমে মাঝে আহরণও শুটকির ব্যবসা থেকে বড় অংশের রাজস্ব পায় বন বিভাগ গত বছর দুবলার মৎস্য পল্লি থেকে আয় হয়েছিল প্রায় ২ কোটি টাকা।তবে দু’দফায় মাছ নষ্ট হওয়ায় সেই লক্ষ্য পূরণ নিয়ে তৈরি হয় সংকট।

বিভাগীয় বন কর্মকর্তা, সুন্দরবন পূর্ব বিভাগ মো. মাহমুদুল হাসান বলেন, সংশ্লিষ্ট সকলকে চিঠি দিয়ে তাদেরকে সতর্ক করা হয়েছে। সরকারের রাজস্ব আদায়ের যে লক্ষ্য মাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে অবশ্যই এটা দিয়ে এ টার্গেট পূরণ করতে হবে। শরণখোলার রেঞ্জ অফিসারকে পাঠিয়েছি সংশ্লিষ্ট এলাকা পরিদর্শন করেছে এবং যথাযথভাবে কার্যক্রম অব্যাহত আছে।
দুবলার চরে জেলেরা বলেন, সাগরে মাছ পড়ছে না এখনো তাই মৌসুমের শেষে অনেকে ঋণের বোজা ঘাড়ে নিয়ে ফিরতে হবে। যমুনা নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত