প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

১ শতাংশ ধনীর দখলে বিশ্বের ৮২ শতাংশ সম্পদ

ডেস্ক রিপোর্ট : বিশ্বের মোট জনসংখ্যার মাত্র ১ শতাংশ মানুষ দখল করে রেখেছে মোট ৮২ শতাংশ সম্পদ। এর থেকেও অবাক করা তথ্য হলো শীর্ষ ৪২ ধনী যে পরিমাণ সম্পদের মালিক তা ৫০ শতাংশ সম্পদের সমান।

বৈষম্যবিরোধী বেসরকারি আন্তর্জাতিক সংস্থা অক্সফাম ইন্টারন্যাশনালের সবশেষ প্রতিবেদনের পরিসংখ্যান বলছে, ওই ৪২ ধনী ব্যক্তি বিশ্বের ৩৭০ কোটি দরিদ্রতম মানুষের সমান সম্পদের অধিকারী। পরিস্থিতিকে ‘অগ্রহণযোগ্য’ আখ্যা দিয়ে বিশ্বনেতাদেরকে বৈষম্য নিরসনে উদ্যোগী হওয়ার তাগিদ দিয়েছে ওই সংস্থা। তাদের পরিসংখ্যান বলছে,  ২০১৫ সাল থেকে ৯৯ শতাংশের অর্জিত সম্পদের চেয়ে বেশি সম্পদ অর্জন করে আসছে ১ শতাংশ ধনী। ২০১৭ সালে এসে মোট বিশ্ব সম্পদের ৮২ শতাংশই চলে গেছে মাত্র ১ শতাংশ ধনী মানুষের হাতে।

সম্পদ-বৈষম্য অক্সফাম ইন্টারন্যাশনালের কেন্দ্রীয় গুরুত্বপূর্ণ বিবেচনাগুলোর একটি।ধারাবাহিকভাবে তারা এ নিয়ে বাৎসরিক প্রতিবেদন হাজির করে থাকে। ২০১৬ সালে ৬২ ধনীর হাতে বিশ্বের দরিদ্রতম অর্ধেক মানুষের সম্পদ কুক্ষিগত থাকার কথা জানিয়েছিল অক্সফাম। ২০১৭ সালে অর্ধেক দরিদ্রতম মানুষের সম্পদ চলে যায় ৬১ জনের হাতে।সংস্থাটির এবারের প্রতিবেদনে সেই বৈষম্য আরও প্রকট হওয়ার আভাস পাওয়া গেছে। সোমবার (২২ জানুয়ারি) প্রকাশিত প্রতিবেদনের পরিসংখ্যান থেকে জানা গেছে, দরিদ্রতম অর্ধেক মানুষের সম্পদ চলে গেছে বিশ্বের মাত্র ৪২ জন ধনীর হাতে।

অক্সফামের দাবি, গত ১২ মাসে ধনকুবেরদেরকে প্রতি দুই দিন পর পরই সম্পদ অর্জনের নতুন রেকর্ড গড়তে দেখা গেছে। অথচ একই সময়ে বিশ্ব জনসংখ্যার দরিদ্রতম ৫০ শতাংশ মানুষের সম্পদের পরিমাণ বাড়ার কোনও লক্ষণ দেখা যায়নি।

অক্সফাম গ্রেট ব্রিটেনের প্রধান নির্বাহী মার্ক গোল্ডরিং মনে করেন, ‘শীর্ষ পর্যায়ে সম্পদের এই পুঞ্জিভূবন সমৃদ্ধ অর্থনীতির চিহ্ন নয়, বরং এটি এমন এক ব্যবস্থার লক্ষণ যা কম মজুরিতে আমাদের জন্য পোশাক ও খাদ্য উৎপাদনকারী লাখ লাখ শ্রমিককে ব্যর্থ করছে।’

অক্সফাম জানিয়েছে, ২০০৬ সাল থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত প্রতি বছর গড়ে বিশ্বের ধনীদের সম্পদের পরিমাণ ১৩ শতাংশ করে বেড়েছে। সংস্থাটি মনে করে, যখন ন্যূনতম মজুরি পাওয়ার জন্য লাখ লাখ মানুষ সংগ্রাম করছে তখন এতো অল্প সংখ্যক মানুষের হাতে এতো বেশি সম্পদ কুক্ষিগত থাকাটা ‘অগ্রহণযোগ্য’। বৈষম্য কমাতে কর ফাঁকির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া এবং শ্রমিকদের যথাযথ মজুরি নিশ্চিত করতে বিশ্বনেতাদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে অক্সফাম।

সম্পদ বৈষম্যের তথ্য উঠে এসেছে অন্যান্য সংস্থার প্রতিবেদনেও। গত ডিসেম্বরে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গের এক প্রতিবেদনে দাবি করা হয়, ২০১৭ সালে বিশ্বের ধনকুবেররা আগের চেয়ে আরও বেশি সম্পদের মালিক হয়েছেন।

শীর্ষস্থানীয় ৫০০ ধনীর সম্পদের পরিমাণ হিসাব করে ব্লুমবার্গ জানায়, ২০১৭ সালে তারা সবাই মিলে আগের চেয়ে ১ ট্রিলিয়ন (১ লাখ কোটি) ডলার বেশি ধনী হয়েছেন। আগের বছরের তুলনায় এর পরিমাণ চার গুণ বেশি। ব্লুমবার্গ বিলিওনিয়ার্স ইনডেক্স অনুযায়ী, ২০১৭ সালে বিশ্বের ধনী শ্রেণির সম্পদের পরিমাণ ২৩ শতাংশ বেড়েছে।  সূত্র: বাংলা ট্রিবিউন

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত