প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

খালেদার গায়ে মানুষ পোড়ার গন্ধ

অধ্যাপিকা অপু উকিল : সংবিধান অমান্য করে দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) যে ভুল করেছিল, সেই ভূলের খেসারত বিএনপিকেই দিতে হবে। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কেনো দেবে? বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কি বিএনপির অভিভাবক, যে তাদের সকল দায়-দায়িত্ব আমাদের নিতে হবে? জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা দীর্ঘ বন্ধুর পথ পাড়ি দিয়ে দেশে অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের ক্ষেত্র তৈরি করেছে।

অন্যান্য সকল দলের মত বিএনপিরও নির্বাচনে অংশগ্রহণ করার অধিকার আছে। যে সংবিধান দেশের মানুষ তৈরি করেছে সেই সংবিধান অনুযায়ী নির্বাচন হবে।আজকের এই বিএনপি কি ভুলে গেছে? দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের পূর্বে বতর্মান এবং নবম সংসদের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিরোধী দলের নেতা বেগম জিয়াকে টেলিফোন করেছিলেন সংলাপে বসার জন্য। গনভবনে দাওয়াত দিয়েছিলেন তাদের দাবি-দাওয়া কি আছে তা নিয়ে আলোচনা করার জন্য। গোটা দেশবাসি দেখেছিল বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়া প্রধানমন্ত্রীর সাথে কি ব্যবহার করেছিলেন। দেশের মানুষ অবাক হয়ে গিয়েছিল খালেদা জিয়ার মুখের ভাষা শুনে। কিন্তু প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ধৈর্য্য ধরে তার কথা শোনেন আর স্বভাব সুলভ ভাষায় মার্জিতভাবে বেগম জিয়ার সাথে কথা বলেন।

দেশবাসির মনে আছে, বার বার অনুরোধ করা সত্বেও তিনি প্রধানমন্ত্রীকে প্রত্যাখ্যান করেছিলেন। শেখ হাসিনা তখন বিএনপিকে অনুরোধ করার একটা প্রধান কারণ ছিল, বিএনপি যাতে সন্ত্রাসের রাস্তা বেছে না নেয়। সাধারন মানুষের কোনো ক্ষতি না করে। কিন্তু বিএনপি তাদের স্বভাব অনুযায়ী যুদ্ধাপরাধীদের সাথে নিয়ে মানুষ মারার এক ভয়াবহ খেলায় মেতে উঠেছিল।কেউ ভুলে যায়নি বিএনপি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন বর্জন করে ভোট ঠেকানোর ডাক দিয়েছিল। কিন্তু দেশের মানুষ তাদের ডাকে সাড়া না দিলে তারা ক্ষেপে গিয়ে, ভোট কেন্দ্রে বোমা মেরেছিল। মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করেছিল। গণতন্ত্র রক্ষার নামে তারা পেট্রোল বোমা মেরে শিশুসহ শত শত মানুষকে পুড়িয়ে হত্যা করেছে। খালেদা জিয়ার গায়ে মানুষ পোড়ার গন্ধ লেগে আছে, তার সাথে এক টেবিলে আর সংলাপ নয়।

পরিচিতি : সাবেক সংসদ সদস্য, আওয়ামী লীগ
মতামত গ্রহণ : লিয়ন মীর
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ