প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

নারী আধিক্য চায় লেবানন পার্লামেন্ট

ইমরুল শাহেদ : লেবাননের প্রথম নারী বিষয়ক মন্ত্রী বলেছেন, ১০ বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া পার্লামেন্ট নির্বাচনে লেবানন চাইছে আগের চাইতে পাঁচ গুণ বেশি নারী সদস্য। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর মধ্যে লেবানন অনেকটা উদার হওয়া সত্ত্বেও এখানে রাজনীতিতে নারীদের উৎসাহব্যঞ্জক সাড়া নেই।

লেবাননে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা আছে। বিভিন্ন ধর্মের মানুষও এখানে বাস করে। ব্যবসা-বাণিজ্যের ক্ষেত্রে নারীরা একটা উল্লেখযোগ্য অবস্থানে আছেন। কিন্তু আশ্চর্যের বিষয় হলো রাজনীতিতে নারীদের প্রতিনিধিত্ব উল্লেখযোগ্যভাবেই কম। পার্লামেন্টে নারীদের একটা কোটা নির্ধারণেও রাজনীতিবিদরা ব্যর্থ হয়েছেন।

নারী বিষয়ক ন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী জ্যাঁ অগাসসাবিয়ান এসোসিয়েট প্রেসকে বলেছেন, ‘জনজীবন থেকে নারীদের দূরে সরিয়ে রাখাটা নারীদের জন্যই ক্ষতিকর।‘ তিনি বলেন, ‘এখানে বড় বাধা হলো মানসিকতা, জীবন-দর্শন। এক্ষেত্রে অগ্রগতির জন্য সময়েরও প্রয়োজন।’

২০০৯ সালে সমাপ্তির পথে থাকা পার্লামেন্টে মাত্র চার জন নারী নির্বাচিত হয়েছিলেন। ১২৮ জন পার্লামেন্ট সদস্যের মধ্যে এই সংখ্যা মাত্র ৩ শতাংশ। ২০০৫ সালে নির্বাচিত হয়েছিলেন ৬ জন নারী। মাত্র এক মেয়াদেই দেখা গেল একজন কমে গেছে। তবে ২০০৪ সাল থেকে সরকারে স্থান দেওয়া হয়েছে এক বা দুই জন নারীকে।

এই অঞ্চলের দেশগুলোর তুলনায় পার্লামেন্টে নারী প্রতিনিধিত্বের দিক থেকে লেবানন অনেক পিছিয়ে আছে। শুধু ওমান, কুয়েত এবং ইয়েমেনেই নারী প্রতিনিধিত্বের সংখ্যা কম। ওমানে একজন এবং কুয়েতে দুই জন নারী প্রতিনিধিত্ব রয়েছে। যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেনে কোনো নারী প্রতিনিধিত্ব নেই এবং সেখানে এখন কোনো কার্যকর পার্লামেন্টও নেই।

অতিরক্ষণশীল সৌদি আরবের রাজতন্ত্রের সুরা কাউন্সিলে রয়েছেন ৩০ জন নারী সদস্য। তাদেরকে দেওয়া হয়েছে ২০ শতাংশ আসন। লেবাননে ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের দূত খ্রিষ্ট্রিনা লাসেন বার্তা সংস্থা এপিকে বলেছেন, ‘রাজনীতিতে এগিয়ে আসার নারীদের জন্য সত্যিকার অর্থেই কোনো না কোনো বাধা থাকে।’

ভোটের তিন মাস আগে থেকে নারী বিষয়ক মন্ত্রণালয় জাতিসংঘ ও ইইউর সহযোগিতায় নির্বাচনে নারীদের অংশগ্রহণ নিয়ে প্রচারণার কাজ শুরু করবে। তাদের শ্লোগান থাকবে ‘সমাজের অর্ধেক, পার্লামেন্টের অর্ধেক।’
বৈরুতের বিভিন্ন জেলায় বিলবোর্ড লাগানো হচ্ছে, টেলিভিশনে রাজনীতিতে নারীদের অংশগ্রহণ নিয়ে অনুষ্ঠান হচ্ছে এবং স্থানীয় গ্রুপগুলো জনসাধারণের সামনে কথা বলার মতো করে প্রশিক্ষণ দেওয়া শুরু হয়েছে। সূত্র : এবিসি নিউজ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত