প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

কিন্তু ছাত্র সংসদ নির্বাচন নেই!

খালেকুজ্জামান : একটি সন্দেহ আরও একটি সন্দেহকে জাগিয়ে তুলে। যেমন: ডিএনসিসি নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা করেও তার যে পরিণতি হল, ডাকসু নির্বাচনের ঘোষণা হলেও একই পরিণতি হবে কি-না তা নিয়ে সন্দেহ থাকে। সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, ২৭ বছর ধরে ডাকসু নির্বাচন কেন হল না, তার কোনো জবাব ক্ষমতাসীন কোনো দলই দিতে পারেনি। আজকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংসদ নির্বাচন না করে যে পরিণতি হয়েছে, তার জন্য যারা বিভিন্ন সময় ক্ষমতায় ছিল তারা দায়ী। নির্বাচন না দিয়ে ক্ষমতাসীনরা তাদের অনুগত ছাত্র-ছাত্রী, শিক্ষকদের দিয়ে বিভিন্ন কার্যক্রম চালায়। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের নিয়ন্ত্রণে নিয়ে যায়।

এখন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পরিবেশ খুবই নাজুক। আগে এই পরিবেশ ঠিক করা জরুরী। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যে সংস্কৃতি চর্চা অথবা গবেষণা থাকার কথা সেটি না হয়ে দুর্বৃত্তদের আখড়া হয়ে গেছে। সেখানে হল বাণিজ্য, সিট বাণিজ্য, বিভিন্ন দখল বাণিজ্য চলছে। সব কিছু মিলিয়ে পরিস্থিতি এমন হয়েছে যে, সাধারণ ছাত্র-ছাত্রীরা নির্বাচন চাইলে, একটি মহল এটির বিপক্ষে কাজ করে। তাই আগে এই পরিবেশটি ঠিক করতে হবে। আমরা সবাই চাই, শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ছাত্র সংসদ নির্বাচন হউক।

কারণ, সিনেট নির্বাচন, শিক্ষক নির্বাচন আছে। কিন্তু ছাত্র সংসদ নির্বাচন নেই! নেই মানে গণতন্ত্র অনুপস্থিত। সংস্কৃতিগত পরিবেশ অনুপস্থিত। তাছাড়া ছাত্র-ছাত্রীদের মতামতের ভিত্তিতে তাদের একজন নেতা হবে, সে বিভিন্ন ভালো-মন্দ দেখবে, এটিই নিয়ম। তাই সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে দলীয়করণ থেকে মুক্ত করে, ছাত্র সংসদ নির্বাচন দিয়ে, প্রতিষ্ঠানের শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনবে, আমরা এটি আশা করি।

পরিচিতি : সাধারণ সম্পাদক, বাসদ
মতামত গ্রহণ : গাজী খায়রুল আলম
সম্পাদনা : মোহাম্মদ আবদুল অদুদ

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বশেষ

সর্বাধিক পঠিত