প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

ধুলার রাজ্য বনশ্রী

ডেস্ক রিপোর্ট : বনশ্রী সড়কে ঢুকতেই যেন ধুলার রাজ্য। মনে হয়, বোমা ফেলার পর যেভাবে ধোঁয়ার কু-লী হয় সেরকমই। প্রতিটি শুষ্ক মৌসুমে এ অবস্থার সৃষ্টি হয়। এর মধ্যে উন্নয়নের কাজ লেগেই আছে। রয়েছে রাস্তা খানাখন্দও। সড়কজুড়ে গভীর গর্ত। সব মিলিয়ে ত্রাহি অবস্থা।

শনিবার সকালে বনশ্রী অক্সফোর্ড স্কুলের সামনে দাঁড়িয়ে এ কথাগুলো বলেছিলেন ওই এলাকার বাসিন্দা ও সরকারি কর্মকর্তা দিদার আলম।

সরেজমিন দেখা যায়, রামপুরা ব্রিজ থেকে হাতের বাম দিকে বনশ্রীর দিকে ঢুকতেই ধুলার রাজ্য শুরম্ন হয়। এ অবস্থা আইডিয়াল স্কুল পর্যন্ত্ম। এর মধ্যে এক পাশে চলছে সিটি করপোরেশনের উন্নয়নকাজ।

এ সড়কে বসিলা, মোহাম্মদপুর, গাবতলী, ধউর, আব্দুল্লাহপুর থেকে রমজান, গ্যালাক্সি, রবরব, অছিম, আলিফ, স্বাধীন পরিবহনের গাড়িগুলো ডেমরা হয়ে মদনপুর পর্যন্ত চলাচল করে। মাদারটেক পর্যন্ত্ম চলাচল করে লেগুনা।

সেই সঙ্গে ব্যক্তিগত কার, কাভার্ডভ্যান, পিক-আপ ও জিপ গাড়ি এ সড়ক ধরে নরসিংদী, নারায়ণগঞ্জ, সিলেট, কুমিল্লা ও চট্টগ্রাম অঞ্চলে চলাচল করে। সব মিলিয়ে বেশি গাড়ি চলাচল করায় সড়কটি প্রায় সময় চলাচলের অযোগ্য হয়ে পড়ে। সড়কের ধুলাবালিতে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে রাজধানীর বনশ্রী, বাড্ডা ও রামপুরা এলাকার মানুষের জনজীবন। অছিম গাড়ির যাত্রী স্থানীয় বাসিন্দা হোসেন আলী বলেন, ‘এ ধুলা খেয়ে আমাদের দিন যায়। সবসময় রাস্তাটি বেহাল অবস্থা। ঠিক করলেও রাতের বেলায় লরি, ট্রাক ও কাভার্ডভ্যান চলার কারণে গর্তের সৃষ্টি হয়।

এদিকে উন্নয়নকাজ চলায় মাটি ও বালুর কারণে ধুলার সৃষ্টি হয়। তবে কিছু কিছু অংশে সড়কের পাশের ব্যবসায়ীরা পানি ছিটিয়ে ধুলা থেকে রক্ষার চেষ্টা করছেন। কিন্তু পানি শুকিয়ে গেলে ফের ধুলার সৃষ্টি হচ্ছে।

স্থানীয় দোকানি মোমেন মলিস্নক বলেন, ধুলা আর ময়লার কারণে এ সড়কের পাশে থাকা দোকানগুলোর অবস্থাও খারাপ। এগুলো দেখার কেউ নেই। মিউনিসিপালিটি উন্নয়নের কাজ করেই যাচ্ছেন। শেষ হবে কবে জানেন না। আবার উচ্চ আদালতের নিষেধাজ্ঞা আছে, তারপরও ভারী যানবাহনও চলাচল করছে। এ কারণে বারবার রাস্ত্মা ক্ষতিগ্রস্ত্ম হয়। ভারী যানবাহন চলাচল বন্ধ করে, রাস্তা এবং ড্রেনের উন্নয়ন এক সঙ্গে শেষ করলেও হয়তো এ ধুলা থেকে বনশ্রীবাসী মুক্তি পেতে পারে।

তিনি বলেন, ‘শুধু আমরা দোকানিরাই নয়। ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে শিশুরাও। এখানে অনেক স্কুল-কলেজ আছে। ধুলার কারণে ছাত্রছাত্রীরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে।’যায়যায়দিন।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত