প্রচ্ছদ

সর্বশেষ খবর :

প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় কুপিয়ে জখম

আজহারুল হক, ময়মনসিংহ: প্রথমে প্রেম, পরে বিয়ের প্রস্তাব দেয় কাশেম নামে এক পোশাক তৈরি কারখানার শ্রমিক। তাতে ময়মনসিংহ নগরীর মুমিনুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজের অর্থনীতি বিভাগের (অনার্স) প্রথম বর্ষের ছাত্রী ফারহানা আক্তার রীমাকে ক্ষুর দিয়ে মাথায়, গলায় ও হাতে কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে বখাটে কাশেম। ওই কলেজ ছাত্রী বর্তমানে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

শুক্রবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে নগরীর গাঙ্গিনারপাড় এলাকায় কলেজ ছাত্রী রীমাকে ডেকে এনে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায় কাশেম।

আহত ছাত্রী জানায়,কাশেম তাদের আত্মীয়। সে একটি গার্মেন্টেসে চাকরি করে।

আহত রিমার বাবা পল্লী চিকিৎসক হেলাল উদ্দিন অভিযোগ করেন, রিমা পড়াশুনার জন্য ময়মনসিংহ নগরীর গোলকি বাড়ি এলাকায় একটি ছাত্রী মেসে থাকতো। দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে তাদের আত্মীয় কাশেম উত্যক্ত করে আসছিলো।

বিভিন্ন সময় বিয়ের প্রস্তাবও দিতো। কিন্তু পরিবারের পক্ষ থেকে নাকচ করে দেয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে শুক্রবার সন্ধ্যায় ময়মনসিংহ শহরের গাঙ্গিনারপাড় এলাকায় ডেকে নিয়ে কুপিয়ে জখম করে পালিয়ে যায়।

পরে বিষয়টি তার সহপাঠীদের মুঠোফোনে জানালে সন্ধ্যায় তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে।

ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ফারহানা আক্তার রিমা জানান, তাদের আত্মীয় কাশেম দীর্ঘদিন ধরে প্রেমের ও বিয়ের দিয়ে আসছিলো। এনিয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই আতঙ্ক ছিলো সে। শুক্রবার সন্ধ্যার পূর্বে কাশেম তাকে মোবাইল ফোনে জরুরি প্রয়োজনে ২শ টাকা ধার চেয়ে ডেকে আনে গাঙ্গিনারপাড় এলাকার একটি মার্কেটের দ্বিতীয় তলায়। সেখানে আকস্মিক সে বিয়ের প্রস্তাব দেয় এবং পাগলামি করতে থাকে। এতে রাজি না হওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে তার ক্ষুর দিয়ে কুপিয়ে পালিয়ে যায়।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এ নেওয়াজী জানান, ওই শিক্ষার্থীকে ছুরিকাঘাতের খবর শুনে

হাসপাতালে খোঁজখবর নিয়েছি। পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানান গেছে, এরা দুজনই পূর্ব পরিচিত। অভিযুক্তকে ধরতে পুলিশ তৎপর রয়েছে।

এক্সক্লুসিভ রিলেটেড নিউজ

সর্বাধিক পঠিত